প্রথমবার ইউরোর খরা কাটানোর লক্ষ্যে আজ মাঠে নামছে ইংল্যান্ড

সায়ন ঘোষ

এখনও অবধি বড় মঞ্চে সাফল্য বলতে ১৯৬৬ সালের বিশ্বকাপ জয়। এছাড়া ১৯৬৮ ও ১৯৯৬ সালে দু’বার ইউরো রানার্স হওয়া ছাড়া কোনও সাফল্য আসেনি থ্রি লায়ন্সদের। এই বছর কোচ গ্যারেথ সাউথগেটের প্রশিক্ষণে প্রথমবার ইউরো জয়ের স্বপ্ন দেখছে তারা। ইউরোতে থ্রি লায়ন্সদের দুর্গ আগলাবেন জর্ডন পিকফোর্ড। সঙ্গে থাকবেন সাম জনস্টোন ও ডিন হেন্ডারসন। থ্রি লায়ন্সদের রক্ষণে বড় ভরসা ম্যান সিটিকে ইপিএল জেতানো ডিফেন্ডার জন স্টোন্স। ডিপ ডিফেন্সে জন স্টোন্সের সঙ্গী হতে তৈরি হ্যারি মিগুইরে ও টায়রন মিঙ্গস। রয়েছেন আতলেতিকো মাদ্রিদে হয়ে লা লিগা জেতা ডিফেন্ডার কাইরন ট্রিপিয়ার। এছাড়াও কাইল ওয়াকার ও লুক শ-এর মতো উইংব্যাক রয়েছেন, যাঁরা রক্ষণের পাশাপাশি আক্রমণ শানাতেও পটু।

আরও পড়ুন: ‘ক্রিস, ক্রিস, আই লাভ ইউ’: বেলজিয়াম-রাশিয়া ম্যাচে এরিকসেনের ছায়া

ইংল্যান্ড মিডফিল্ডে একাধিক দুর্দান্ত ফর্মে থাকা মিডিও থাকায় তা অত্যন্ত শক্তিশালী। দুই কিংবদন্তি মিডিও ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড ও স্টিভেন জেরার্ডের অবসরের পর পরিবর্ত হিসেবে দলে এসেছে একাধিক মিডিও। চেলসিকে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জেতানো মিডিও ম্যাসন মাউন্ট ইংল্যান্ড মাঝমাঠে সবচেয়ে বড় ভরসা। দলে আছে ভারতে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপের দুই নায়ক ম্যান সিটির ফিল ফোডেন ও ডর্টমুন্ডের জর্ডান স্যাঞ্চো। দুই তরুণ প্রতিভাই এবছর দুর্দান্ত ফর্মে আছে। এছাড়াও আছেন অভিজ্ঞ জর্ডান হেন্ডারসন। ইংল্যান্ডের মিডফিল্ড এবারের ইউরোতে যথেষ্ট শক্তিশালী, তা বলাই বাহুল্য।

আরও পড়ুন: আপাতত স্থিতিশীল এরিকসন: ড্যানিশ তারকার জন্য প্রার্থনায় গোটা ফুটবল বিশ্ব

গোলের জন্য ইংল্যান্ড তাকিয়ে থাকবে অধিনায়ক ও ২০১৮ বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ গোলদাতা হ্যারি কেনের দিকে। কিংবদন্তি স্ট্রাইকার ওয়েন রুনি অবসরের পর ইংরেজদের দায়িত্ব পড়েছে হ্যারি কেনের হাতে। এবছর প্রিমিয়ার লিগে দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন হ্যারি কেন। হ্যারি কেনের সঙ্গে আপফ্রন্টে থাকবেন তরুণ স্ট্রাইকার মার্কাস রাশফোর্ড। এই মরশুমে ম্যান ইউর হয়ে অসাধারণ খেলেছেন রাশফোর্ড। স্ট্রাইকারের পাশাপাশি উইংয়ে খেলতে পারা তরুণ প্রতিভা এবারের ইউরোর বড় আকর্ষণ। এছাড়া রয়েছে ম্যান সিটির রহিম স্টার্লিং, যিনি যেকোনও সময়ে ম্যাচের রং বদলে দিতে পারেন।

আরও পড়ুন: জ্যাঙ্গো, র‍্যাম্বো আর ফুটবল

ইংল্যান্ড দল বরাবর দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দেখালেও নকআউটে গিয়ে হোঁচট খাওয়ার প্রবণতা আছে। গত বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নেওয়া তার একটা উদাহরণ। গ্যারেথ সাউথ গেটের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ প্রথমবার ইউরো জেতার। ইংল্যান্ডের অভিযান শুরু হচ্ছে আজ ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে। এরপর তাদের খেলা ১৯ তারিখ স্কটল্যান্ড ও ২৩ তারিখ চেক প্রজাতন্ত্র।

ইংল্যান্ড দল

গোলরক্ষক
ডিন হেন্ডারসন (ম্যান ইউ), সাম জনস্টন (ওয়েস্ট ব্রমউইচ আলবিওয়ন), জর্ডান পিকফোর্ড

রক্ষণ

জন স্টোন্স (ম্যান সিটি), হ্যারি মিগুইরে (ম্যান ইউ), লুক শ (ম্যান ইউ), বেন চিলওয়াল (চেলসি) রিক জেমস (চেলসি) কনর কডি (উলভস), টাইরোন মিংস (অ্যাস্টন ভিলা), কাইল ওয়াকার (ম্যান সিটি), কায়রন ট্রিপিয়ার (আতলেতিকো মাদ্রিদ), বেন ওয়াইট (ব্রিংটন)

মাঝমাঠ

ম্যাসন মাউন্ট (চেলসি), ফিল ফোডেন (ম্যান সিটি), জর্ডান সাঞ্চো (ডর্টমুন্ড), জর্ডান হেন্ডারসন (লিভারপুল), জুডে বেলিংহ্যাম (ব্রিংটন), জাক গার্লিস (অ্যাস্টন ভিলা), কেভিন ফিলিপস (লিডস ইউনাইটেড), ডিক্লেন রাইস (ওয়েস্ট হ্যাম), বুকে সাখা (আর্সেনাল)

স্ট্রাইকার
হ্যারি কেন (স্পার্শ), মার্কাস রাশফোর্ড (ম্যান ইউ), রহিম স্টার্লিং (ম্যান সিটি), ডমিনিক কালভার্ট লিওন (এভার্টন)

কোচ
গ্যারেথ সাউথ গেট

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *