সন্তানের সামনে ফ্রান্সের যুবতীকে গণধর্ষণ, উল্টে ধর্ষিতাকেই ভৎসনা করল পাকিস্তানের পুলিশ

Mysepik Webdesk: বিকৃতকামী কয়েকজন মানুষের যৌন লালসার শিকার হলেন ফ্রান্সের এক যুবতী। পাকিস্তানে থাকাকালীন দুই সন্তানের মা ওই মহিলাকে ১৫ জনেরও বেশি দুষ্কৃতী গণধর্ষণ করল। পুলিশের কাছে সাহায্য চাইতে গেলে উল্টে তাঁকেই ভৎসনা করল পাকিস্তানের পুলিশ। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে পাকিস্তানের লাহোরে।

আরও পড়ুন: ফের মহাকাশ গবেষণায় ব্যার্থ, এই নিয়ে বছরে চারবার চিনের স্যাটেলাটে পৌঁছালনা কক্ষপথে

এদিকে এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠনের সদস্যরা। নির্যাতিতা যুবতীর পক্ষ নিয়ে রাস্তায় নেমে প্রতিবাদে সরব হন প্রায় হাজারেরও বেশি মহিলা। এরপরেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে দেখে ঘটনায় অভিযুক্ত দুষ্কৃতীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করার নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ১৫ জন অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ১১ সেপ্টেম্বর রাতে লাহোরে দুই সন্তানকে নিয়ে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছিলেন ওই মহিলা। রাস্তায় গাড়ির তেল শেষ হয়ে যাওয়ায় তিনি তাঁর স্বামীকে ফোন করে সেকথা জানান। মহিলার স্বামী তাঁকে পুলিশের সাহায্য নিতে পরামর্শ দেন। ঠিক সেই সময়ই জনা ১৫ দুষ্কৃতী সেখানে হাজির হয়ে গাড়ির কাঁচ ভেঙে তাঁর দুই সন্তানের সামনেই তাঁকে গণধর্ষণ করে। পরে ওই মহিলার কাছ থেকে এটিএম কার্ড এবং নগদ টাকা পয়সা নিয়ে চম্পট দেয়।

আরও পড়ুন: বিশ্বজুড়ে তীব্র নিন্দা সত্ত্বেও কুস্তিগীর নাভিদ আফকারির ফাঁসি কার্যকর করল ইরান সরকার

পরে এই ঘটনার পরেই তদন্তকারী পুলিশ আধিকারিক উমর শেখকে ঘটনার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি আশ্চর্জনকভাবে ওই ঘটনার জন্য ওই যুবতীকেই দোষারোপ করতে থাকেন। তিনি জানান, “পাকিস্তানের কোনও পুরুষ তাদের মেয়ে বোনদের রাতে একা বাইরে বেরোতে অনুমতি দেয় না। ওই মহিলার উচিৎ ছিল অন্য কোনও নিরাপদ রাস্তা বেছে নেওয়া বা দিনের বেলায় যাতায়াত করা। তাছাড়া ফ্রান্সের মতো পাকিস্তানেও মহিলারা যথেষ্ট সুরক্ষিত।” পুলিশ আধিকারিকের একথা প্রকাশ্যে আসতেই শহরজুড়ে শুরু হয়ে যায় মহিলাদের প্রতিবাদ।

Similar Posts:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *