কবে হুঁশ ফিরবে মানুষের? বাজি ফাটানোর ফলে দিল্লির একাধিক এলাকায় দূষণ চরমে

Mysepik Webdesk: করোনা রোগীদের কথা মাথায় রেখে গোটা দেশজুড়ে এ বছর দীপাবলিতে বাজি পোড়ানোয় নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছিল। কিন্তু সেই নিষেধাজ্ঞাকে কার্যত বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে দিল্লির একাধিক এলাকায় বাজির উৎসবে মেতে উঠতে দেখা গেল দিল্লি বাসীকে। রাতের দিকে পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে দিল্লির একাধিক এলাকায় দূষণের মাত্রা (AQI) পৌঁছে গিয়েছে ৯৯৯ পর্যন্ত। শুধু তাই নয়, দূষণ নিয়ন্ত্রণে একাধিক এলাকায় শনিবার দিল্লি পৌর কর্পোরেশকে মধ্যরাতে জল দিয়ে ফগিং করতেও দেখা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: কাশ্মীর সীমান্তে পাক-অনুপ্রবেশ রুখে দিল ভারতীয় সেনা

Only 'green' firecrackers in Delhi-NCR this Diwali: SC

চিকিৎসকরা আগে থেকেই জানিয়েছিলেন, এ বছর কালীপুজো ও দীপাবলির অনুষ্ঠানে আতশবাজিকে দূরে রাখার জন্য। কারণ, আতসবাজির ধোয়া থেকে যে দূষণ হয়, তা করোনা আক্রান্তদের পক্ষে মারাত্মক ক্ষতিকর। শুধু তাই নয়, হোম আইসোলেশনে থাকা অবস্থাতেও দূষণের ক্ষতিকারক প্রভাব থেকে নিস্তার নেই তাদের। পাশাপাশি সংক্রমণের পর সুস্থ হয়ে উঠলেও করোনা রোগীর ফুসফুসে দীর্ঘমেয়াদি ক্ষতি করে থাকে এই দূষণ। সেই কারণে দিল্লির প্রশাসন কম সংখ্যক বাজি পোড়ানোর অনুমতি দিলেও কার্যত তাতে লাগাম দেওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন: ফের সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন পাকিস্তানের, পাক-সেনার ছোড়া গুলিতে ৪ নাগরিক-সহ মৃত ৭

Diwali firecrackers turn Delhi's air toxic again — Quartz India

এদিকে এই রাজ্যেও গোটা নভেম্বর মাস জুড়ে বাজি কেনা-বেচা করা কিংবা বাজি পোড়ানোর ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। করোনা রোগীদের স্বাস্থ্যের কথা ভেবে বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় ও অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ এই নির্দেশ দিয়েছেন। কোর্টের তরফ থেকে পুলিশকেও এই বিষয়ে আরও করা হওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। যদিও গুটিকয়েক এলাকায় সেই নির্দেশ উপেক্ষা করে বাজি পোড়ানোর খবর পাওয়া গিয়েছে। তবে কয়েকটি বিক্ষিপ্ত ঘটনা ছাড়া খাস কলকাতার বুকে মোটের ওপর নিস্তব্ধেই পালিত হয়েছে কালীপুজো।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *