বিষাক্ত কুড়ির শেষ ছোবল, প্রয়াণ ভারতীয় হকি দলের আদিবাসী মুখ মাইকেল কিন্ডোর

Mysepik Webdesk: প্রাক্তন হকি অলিম্পিয়ান মাইকেল কিন্ডো বছরের শেষদিন প্রয়াত হয়েছেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৩। বৃহস্পতিবার সকালে তাঁর স্বাস্থ্যের হঠাৎ অবনতি ঘটলে তাঁকে আইজিএস রাউরকেলায় ভর্তি করা হয়, সেখানে দুপুর তিনটায় তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন। তিনি রেখে গেলেন তাঁর স্ত্রী এবং পুত্রকে। মাইকেল কিন্ডো ১৯৪৭ সালে সিমডেগার কুর্দেগ ব্লকের বিঘমা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। সেনাবাহিনীতে কাজ করার সময় তিনি ভারতীয় হকি দলে যোগ দিয়েছিলেন এবং অনেকগুলি বিশ্বকাপে পদক জিতেছিলেন। ভারতীয় দল ১৯৭২ মিউনিখ অলিম্পিকে একটি ব্রোঞ্জ পদক জিতেছিল। মাইকেল কিন্ডো এই দলের অংশ ছিলেন। তিনি একাত্তর বিশ্বকাপে একটি ব্রোঞ্জ পদক, ১৯৭৩ বিশ্বকাপে রুপো এবং ১৯৭৫ বিশ্বকাপে স্বর্ণপদক পেয়েছিলেন। এছাড়াও এশিয়ান গেমস, এশিয়া কাপ, কমনওয়েলথ গেমস সহ অনেক বড় প্রতিযোগিতায় তিনি ভারতীয় দলের প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন।

আরও পড়ুন: সিডনি টেস্টের প্রস্তুতি শুরু করলেন রোহিত, টুইট বিসিসিআইয়ের

তাঁর কৃতিত্ব দেখে ভারত সরকার ১৯৭২ সালে তাঁকে অর্জুন পুরস্কার প্রদান করে। সেনাবাহিনী থেকে অবসর নেওয়ার পরে মাইকেল কিন্ডো রাউরকেলার হকি অ্যাকাডেমিতে প্রশিক্ষক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। এই সময়ে তিনি অনেক আন্তর্জাতিক খেলোয়াড় তৈরি করেছিলেন। এহেন কিংবদন্তি হকি খেলোয়াড়ের মৃত্যুতে শোকের মহল তৈরি হয়েছে। পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, ‘‘মাইকেল কিন্ডো বার্ধক্যজনিত সমস্যার কারণে রাউরকেলার একটি হাসপাতালে প্রয়াত হয়েছেন। তিনি দীর্ঘদিন অসুস্থতার কারণে হাঁটতে পারছিলেন না।”

ভারতীয় হকি ফেডারেশন টুইট করেছে, ‘‘আমাদের প্রাক্তন হকি খেলোয়াড় এবং ১৯৭৫ বিশ্বকাপজয়ী মাইকেল কিন্ডোর মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে দুঃখিত। আমরা তাঁর পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাই।”

আরও পড়ুন: নতুন বছরে স্থগিত মহিলাদের ভারত-অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট সিরিজ

অন্যদিকে, তাঁর মৃত্যুতে ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পটনায়েক টুইট করেছেন, ‘‘হকি কিংবদন্তি এবং অর্জুন পুরস্কার বিজয়ী মাইকেল কিন্ডোর মৃত্যুতে আমি গভীরভাবে শোকাহত। তিনি ছিলেন আদিবাসীদের নায়ক। ভারতের ১৯৭৫ বিশ্বকাপজয়ী দলের সদস্য ছিলেন তিনি। তাঁর পরিবার ও ভক্তদের প্রতি আমার সমবেদনা জানাই।”

আরও পড়ুন: কন্যাশ্রী কাপ ফাইনালে হারল ইস্টবেঙ্গল

প্রাক্তন ভারতীয় অধিনায়ক দিলীপ তিরকি টুইট করেছেন, ‘‘হকি কিংবদন্তি মাইকেল কিন্ডো তাঁর দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের জন্য স্মরণীয় হয়ে থাকবেন। তিনি দেশের সম্মান বাড়িয়েছিলেন। তিনি নিঃসন্দেহে একজন দুর্দান্ত হকি খেলোয়াড় ছিলেন এবং একজন পরামর্শদাতা হিসাবেও নিজের জায়গা তৈরি করেছিলেন।”

আরও পড়ুন: অলিম্পিকের জন্য ভারতীয় রেসলাররা কতটা প্রস্তুত?

বর্তমান দিনে ভারতীয় হকি দলে অনেক আদিবাসী মুখ দেখা গেলেও কিন্ডো যে সময় ভারতীয় দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন, সেই পর্বে তিনিই ছিলেন আন্তর্জাতিক মঞ্চে ভারতীয় ব্রিগেডে একমাত্র নিয়মিত আদিবাসী মুখ। অর্জুন পুরস্কারে ভূষিত কিন্ডো ছিলেন স্বভাব লাজুক। কুড়ি সালের নক্ষত্র পতনের তালিকায় অন্তরিন নক্ষত্র কিন্ডো বিদায় নিলেন সবার অগোচরে, নিঃশব্দে, প্রচারবৃত্তের অনেক বাইরে থেকে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *