রাজ্যে খুলছে হোটেল-রেস্তোরা, তবে রয়েছে একাধিক শর্ত, জানুন বিস্তারিত

Mysepik Webdesk: দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর অবশেষে রাজ্যের হোটেল-রেস্তোরাগুলি খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। বৃহস্পতিবার বণিকসভার বৈঠকে এই কথা জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি হোটেল-রেস্তোরাঁ খোলার পাশাপাশি প্রত্যেক কর্মীদের টিকাকরণের ব্যবস্থা করার নির্দেশ দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি আজ ২৯ টি বনিক সংগঠন নিয়ে বৈঠক করেন। তিনি জানান, “অবিলম্বে নিজেদের কর্মীদের টিকাকরণের ব্যবস্থা করুন। ওই টিকা নিজেরাই কিনুন। ভেবে নিন, ওই টাকা আপনারা রাজ্য সরকারের বিপর্যয় মোকাবিলার ত্রাণে দিচ্ছেন।” তিনি এদিন উপযুক্ত স্যানিটাইজেশনের ব্যবস্থা রেখে নির্দিষ্ট সময়ের জন্য হোটেল-রেস্তোরাঁ খোলার পরামর্শ দেন। পাশাপাশি বেশ কিছু করোনাবিধিও আরোপ করেন।

আরও পড়ুন: আগামী সপ্তাহ থেকেই শহরে ১৮-র বেশি বয়সী নাগরিকদের ভ্যাকসিন

এদিন মুখ্যমন্ত্রী জানান, বিকেল ৫টা থেকে ৮টা পর্যন্ত হোটেল-রেস্তোরাঁ খোলা যেতে পারে। সমস্ত রকমের করোনা সংক্রান্ত বিধি নিষেধ মেনেই হোটেল-রেস্তোরাঁ খোলা রাখা যাবে। ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়ে রেস্তোরাঁ খোলা রাখতে হবে। এক্ষেত্রে কোনও রকম শিথিলতা চলবে না। তাঁর কথায়, “আপনারা হোটেল বন্ধ রাখুন, এমনটা আমরা চাই না। এর জন্য সমস্ত হোটেল কর্মীকে ভ্যাকসিন দিতে হবে। আর সেই কাজে রাজ্য বণিক সংস্থাগুলোর সাহায্য চাইছি।” তিনি আরও বলেন, “আমরা প্রথম থেকেই ব্যবসায়ীদের কথা ভেবেছি। তাঁদের স্বার্থের কথা মাথায় রেখেই এখনও পর্যন্ত সম্পূর্ণ লকডাউন বা কারফিউ জারি করিনি এই রাজ্যে।”

আরও পড়ুন: করোনার জীবনদায়ী ইঞ্জেকশান চুরির ঘটনাকে রাজনীতির রং লাগাতে চান না মমতা

এদিন মুখ্যমন্ত্রী বৈঠকের পর বণিক সংগঠনগুলিকে অবিলম্বে হাট-বাজারগুলি স্যানিটাইজড করার নির্দেশ দেন। পাশাপাশি যাতে বাজারগুলিতে বেশি মানুষ জমায়েত হতে না পারে সেই বিষয়টির ওপর নজর রাখার কথাও বলেন। এছাড়াও জেলা শাসকদের আরও উদ্যোগী হওয়ার নির্দেশ দেন তিনি। এদিন কলকাতায় বাজার স্যানিটাইজেশন খুব ভালো হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন মুখ্যমন্ত্রী।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *