Latest News

Popular Posts

CT Value ৩০-এর নিচে থাকলেই নমুনা যাবে জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ে, নির্দেশ স্বাস্থ্য দপ্তরের

CT Value ৩০-এর নিচে থাকলেই নমুনা যাবে জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ে, নির্দেশ স্বাস্থ্য দপ্তরের

Mysepik Webdesk: করোনার নতুন স্ট্রেন ওমিক্রনের থাকা চওড়া হচ্ছে দেশে। রীতিমতো আতঙ্ক ছড়িয়েছে দেশজুড়ে। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, আজ পর্যন্ত যতগুলি করোনার স্ট্রেন মিলেছে, তার মধ্যে সবচেয়ে ভয়ঙ্কর হল এই নতুন স্ট্রেন ওমিক্রন। এই স্ট্রেনের সংক্রমণ ক্ষমতা সবচেয়ে বেশি, অথচ উপসর্গ মৃদু। ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক রাজ্যগুলিকে এই বিষয়ে সতর্ক করেছে। এই পরিস্থিতিতে ‘ওমিক্রন’ ঠেকাতে আরও তৎপর হয়েছে রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তরও। রাজ্যের নয়া সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এবার থেকে কোনও করোনা আক্রান্তের ভাইরাল লোড বা সিটি ভ্যালু (CT Value) ৩০-এর নিচে থাকলে নমুনা জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ে পাঠানো হবে।

আরও পড়ুন:দলবদলুদের আর জায়গা নয়! কারা থাকবেন বিজেপির নতুন রাজ্য কমিটিতে?

কেন্দ্রের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ইতিমধ্যেই দেশজুড়ে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা ২০০ পেরিয়েছে। সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের খবর পাওয়া গিয়েছে মহারাষ্ট্র ও দিল্লি থেকে। এছাড়াও তালিকায় রয়েছে তেলেঙ্গানা, কর্ণাটক, রাজস্থানের নাম। এদিকে আবু ধাবি, নাইজেরিয়া, বাংলাদেশের মতো একাধিক ‘বিপজ্জনক’ দেশ থেকে কলকাতায় আসা বেশ কয়েকজন ব্যক্তির শরীরে মিলেছে করোনা সংক্রমণ। তাঁদের নমুনা জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ে পাঠানো হলেও রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। ফলে, এখনও পর্যন্ত রাজ্যে একজনও ওমিক্রন আক্রান্তের হদিস মেলেনি।

আরও পড়ুন:ইন্ডিয়ান অয়েলের রিফাইনারিতে ভয়াবহ আগুন, অগ্নিদগ্ধ ৩৫, মৃত ৩

কিন্তু, সাবধানের মার নেই। ফলে, আগে থেকেই সতর্ক রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তর। নয়া নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে, করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের প্রথম দফায় ৩০-এর নিচে ভাইরাল লোড থাকা করোনা রোগীদের ক্ষেত্রে এই ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হবে। প্রথম পর্যায়ে কলকাতার রোগীদের ক্ষেত্রে এই নিয়ম লাগা হবে। পড়ে ধাপে ধাপে রাজ্যের অন্যান্য শহরগুলোতেও এই নিয়ম লাগা হবে। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে করোনার ‘ওমিক্রন’ স্ট্রেনে আক্রান্তরা বেশিরভাগই উপসর্গহীন। ফলে, আগামী দিনে রাজ্যে ওমিক্রন আক্রান্তের সংখ্যা যাতে লাগামছাড়া না হয়ে যায়, সেই কারণেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্বাস্থ্য দপ্তর।

টাটকা খবর বাংলায় পড়তে লগইন করুন www.mysepik.com-এ। পড়ুন, আপডেটেড খবর। প্রতিমুহূর্তে খবরের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন। https://www.facebook.com/mysepik

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *