উত্তরপ্রদেশের গণধর্ষণের ঘটনায় মৃতার দেহ পরিবারের হাতে তুলে না দিয়ে পুলিশই দাহ করল

Mysepik Webdesk: উত্তরপ্রদেশের হাতরসের গণধর্ষণের ঘটনায় নির্যাতিতার দেহ তার পরিবারের হাতে তুলে না দিয়ে ধর্মীয় রীতিনীতি পালন করে পুলিশই দাহ করে দিল। গণধর্ষণের শিকার হওয়া ওই নির্যাতিতার মঙ্গলবার দিল্লিতে মৃত্যু হয়। পুলিশের এই পদক্ষেপে স্বাভাবিকভাবে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নির্যাতিতার গ্রামের মানুষ।

আরও পড়ুন: উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু করোনা আক্রান্ত

এদিকে দিল্লি থেকে শবদেহ উত্তরপ্রদেশে আসার পর পুলিশ যখন সেই শবদেহ দাহ করার কাজ করছিল, সেই সময় সেখানে সাংবাদিকরা উওপস্থিত হলে পুলিশের পক্ষ থেকে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করা হয়। সাংবাদিকদের সেই সংবাদ পরিবেশন না করার জন্য কার্যত বাধ্য করার চেষ্টা করা হয়। এদিকে মৃতদেহ গ্রামে আসার পর যখন সেই দেহ পরিবারের হাতে তুলে দিতে অস্বীকার করে পুলিশ, তখন মৃতার পরিবারের তরফ থেকে প্রতিবাদ করা হয়। অ্যাম্বুলেন্সের সামনে শুয়ে প্রতিবাদ করেন মৃতার পরিজনেরা। এরপরেই পুলিশের সঙ্গে সেখানেই তাদের খণ্ডযুদ্ধ বেঁধে যায়।

আরও পড়ুন: দীর্ঘ ২৮ বছর পর বাবরি মসজিদ ধ্বংস সংক্রান্ত মামলার রায় আজ

ঐদিনই রাত প্রায় ২টো ৪০ মিনিট নাগাদ পরিবারের অনুপস্থিতিতেই নিয়ম মেনে পুলিশের তরফ থেকে মৃতদেহ সৎকার করা হয়। মৃতার কাকা ভূরি সিং সংমাধ্যমকে জানিয়েছেন, পুলিশ তাদের ওপর চাপ দিছিলো, যাতে তাঁরা রাতেই শেষকৃত্য সম্পন্ন করে। কিন্তু মেয়ের মা-বাবা-ভাই কেউই সেখানে উপস্থিত না থাকায় মৃতার পরিজনরা পরের দিন সকালে মৃতদেহ দাহ করার কথা পুলিশকে জানিয়েছিল। কিন্তু পুলিশ চাইছিল, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব মৃতদেহ দাহ করতে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *