আজ বঙ্গে ভোট পঞ্চমী, রাজ্যে মোতায়েন ১,০৭১ কোম্পানি কেন্দ্রীয় সুরক্ষা বাহিনী

Mysepik Webdesk: আজ পশ্চিমবঙ্গে ৪৫টি আসনে পঞ্চম দফায় নির্বাচন হচ্ছে। মোট ৩১৯ জন প্রার্থী রয়েছেন এই আসনগুলিতে। এর মধ্যে ৩৯ জন মহিলা। জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, দার্জিলিং, উত্তর চব্বিশ পরগনা, নদিয়া সিটি এবং পূর্ব বর্ধমান জেলায় নির্বাচন হচ্ছে। ৪৫টির মধ্যে ১৩টি আসন উত্তরবঙ্গ থেকে। বিজেপি এখানে বেশ শক্তিশালী। দক্ষিণবঙ্গে তৃণমূলের প্রভাব বেশি বলে মনে করা হচ্ছে। এই নির্বাচনে গোর্খাল্যান্ড আন্দোলন, চা-বাগানে কর্মরত শ্রমিকদের শোষণ ও বিকাশের মতো বিষয়গুলিও গুরুত্ব পাচ্ছে। এই পর্বে সর্বোচ্চ আসনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। উল্লেখ্য, এই ৪৫টি আসনে বিজেপি ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের চেয়ে বেশি ভোট পেয়েছিল।

পঞ্চম দফায় ১২ কোটিরও বেশি ভোটার ভোট দেবেন। ভোটগ্রহণের জন্য ১৫ হাজার ৭৮৯টি ভোটকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। বিজেপি ৪৫টি আসন এবং টিএমসি ৪২টি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। কংগ্রেস, বাম এবং তার মিত্র ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টও যুক্তফ্রন্টের ব্যানারে লড়াইয়ে নেমেছে। অন্যদিকে, ১০ রাজ্যের ১৩টি বিধানসভা ও দু’টি লোকসভা আসনেও উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

আরও পড়ুন: ‘সিনেমায় গোখরো দেখেছ, আসল গোখরো দেখোনি’, মিঠুনকে কটাক্ষ মমতার

তৃণমূল কংগ্রেসের সিনিয়র নেতা এবং মন্ত্রী ব্রাত্য বসু দমদম আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। সিপিআই (এম)-এর পলাশ দাস এবং বিজেপির শঙ্কর নন্দ তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী। তৃণমূলের প্রাক্তন মন্ত্রী মদন মিত্র কামারহাটি আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এখানে তাঁর সঙ্গে টক্কর দিচ্ছেন বিজেপির রাজ্য সহ-সভাপতি রাজু বন্দ্যোপাধ্যায়। এই আসনে সিপিআই (এম) টিকিট দিয়েছেন সায়েনদীপ মিত্রকে। টিএমসির দমকলমন্ত্রী সুজিত বোস বিধাননগর আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এই কেন্দ্রে সব্যসাচী দত্তকে টিকিট দিয়েছে বিজেপি।

তৃণমূল কংগ্রেস রাজারহাট গোপালপুর আসন থেকে সংগীতশিল্পী অদিতি মুন্সি প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। বিজেপি তার মুখপাত্র সমিক ভট্টাচার্যকে টিকিট দিয়েছে। টিএমসি বারাসত আসন থেকে অভিনেতা চিরঞ্জিত চক্রবর্তীকে টিকিট দিয়েছে। বিজেপির শঙ্কর চ্যাটার্জি তাঁর বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তৃণমূলের অলোক কুমার মাঞ্জি জালামপুর আসনের বর্তমান সিপিআই (এম) বিধায়ক সমর হাজরার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে রয়েছেন। নকশালবাড়ি, যা নকশালবাদের মূল বলে মনে করা হয়, থেকে বিজেপি আনন্দময় বর্মণকে টিকিট দিয়েছে। কংগ্রেস বর্তমান বিধায়ক শঙ্কর মালাকারকে এই আসনে বাজি ধরেছে।

আরও পড়ুন: গুলি চালানো যাবে না, প্রয়োজনে অ্যারেস্ট করে থানায় নিয়ে যান: নির্বাচন কমিশন

শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন পরিচালনার জন্য ১,০৭১ কোম্পানি কেন্দ্রীয় সুরক্ষা বাহিনীর মোতায়েন করা হয়েছে। এর মধ্যে ১৫৫ কোম্পানি পূর্ব বর্ধমান, ২৮৩ কোম্পানি উত্তর ২৪ পরগনা, ১২১ কোম্পানি দার্জিলিং, ১৫১ সংস্থা নাদিয়া, ২১ সংস্থা কালিম্পং এবং ১২২ সংস্থা জলপাইগুড়িতে সুরক্ষা পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছে। ১৫,৭৯০ জন পুলিশ সদস্যকেও পৃথকভাবে মোতায়েন করা হয়েছে। এর বাইরে ইন্দো-তিব্বত সীমান্ত পুলিশ (আইটিবিপি) কর্মীরাও দায়িত্বে রয়েছেন।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *