অতীতের মতো আফগান জনগণের পাশে দাঁড়াতে চায় ভারত: জয়শঙ্কর

Mysepik Webdesk: তালিবান শাসনে মানবাধিকার বারবার লঙ্ঘিত হচ্ছে। এই নিয়ে বারবার রাষ্ট্রসংঘে সোচ্চার হয়েছে ভারত। জেনেভায় অনুষ্ঠিত এক উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে ভারত আবারও এই বিষয়ে সোচ্চার হয়েছে। সভায় জানানো হয়েছিল যে, আফগানিস্তানে যে মানবিক বিপর্যয় চলছে, তা সামাল দিতে অন্ততপক্ষে ৬০ কোটি ৬০ লক্ষ ডলার অর্থ সাহায্য প্রয়োজন। আফগানিস্তানের পাশে ভারত যেভাবে আগে ছিল, ঠিক সেভাবেই পাশে থাকবে বলে এর উত্তরে বলেছে ভারত। রাষ্ট্রসংঘের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে, তালিবান আফগানিস্তান দখলের আগে পর্যন্ত প্রায় ১ কোটি ৮০ লক্ষ মানুষ অর্থ সাহায্যের ওপর নির্ভরশীল ছিলেন। কিন্তু বর্তমানে চিত্রটা বদলেছে। রাজনৈতিক পরিস্থিতি, খরা এবং অর্থনৈতিক মন্দার কারণে এই সংখ্যা আরও বাড়বে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে রাষ্ট্রসংঘ।

আরও পড়ুন: কাবুল সফরে গেলেন কাতারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নতুন তালিবান সরকারকে স্বীকৃতি দেয়নি বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। যার জেরে বিপাকে পড়েছেন আম-আফগান নাগরিক। এই পরিস্থিতিতে রাতের ঘুম উড়ে গিয়েছে রাষ্ট্রপুঞ্জের। এমনকী রাষ্ট্রপুঞ্জের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস জানিয়েছেন যে, পরিস্থিতি এতটাই বেগড়বাই হয়েছে যে কর্মীদের বেতন পর্যন্ত দিতে পারছেন না। এই পরিস্থিতিতে চাওয়া হচ্ছে অর্থসাহায্য। রাষ্ট্রপুঞ্জের ‘ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম’-এ এর এক-তৃতীয়াংশ ব্যবহৃত হবে। কারণ সমীক্ষার রিপোর্ট বলছে, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অর্থনৈতিক কারণে ৯০%-এর বেশি মানুষ রয়েছেন খাদ্যাভাবে।

আরও পড়ুন: দু’টি ডোজ নিলেই ১২ সেপ্টেম্বর থেকে UAE যেতে পারবেন ভারতীয়রা

ছবি: পিটিআই

এহেন পরিস্থতিতে ভারতের বিদেশ মন্ত্রী জয়শঙ্কর বলেন, “আজ, আমি এটা বোঝাতে চাই যে গুরুতর উদ্ভূত পরিস্থিতির মুখে ভারত অতীতের মতো আফগান জনগণের পাশে দাঁড়াতে ইচ্ছুক। কাবুল বিমানবন্দরের নিয়মিত বাণিজ্যিক কার্যক্রমের ফলে অন্যান্য দেশেও সাহায্য পাঠানো সহজ হবে। আফগানিস্তানের ৩৪টি প্রদেশে উন্নয়ন প্রকল্প ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ। এই জরুরি অবস্থার মধ্যেও ভারত বন্ধুর মতো আফগানিস্তানের জনগণের পাশে দাঁড়িয়েছিল এবং তা বজায় রাখবে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়েরও উচিত আফগানদের উন্নত পরিবেশ গড়ে তোলার জন্য দৃঢ়ভাবে সমর্থন করা।” উল্লেখ্য যে, বিগত কয়েক বছর ধরে আফগানিস্তানে প্রোটিন বিস্কুট পাঠায় ভারত। তাছাড়াও ২০২০-তে ৭৫ হাজার মেট্রিক টন গম পাঠানো হয়েছিল। আফগানিস্তানে ৩০০ কোটি ডলার বিনিয়োগও করা হয়েছে। একথাও স্মরণ করেন জয়শঙ্কর।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *