জ্যাভলিন নিয়ে চলে গিয়েছিলেন পাক জ্যাভলার নাদিম, নীরজের কথার বিকৃতি করায় নেটিজেনদের জবাব ভারতীয় জ্যাভলারের

Mysepik Webdesk: ভারতকে এবার অলিম্পিক থেকে সোনার পদক এনে দিয়েছেন জ্যাভলার নীরজ চোপড়া। জ্যাভলিন থ্রোয়ের ফাইনালে প্রথম চেষ্টায় তিনি ৮৭.০৩ মিটার থ্রো করেন। তাঁর দ্বিতীয় থ্রোটি ছিল ৮৭.৫৮ মিটার। অন্য কোনও জ্যাভলার নীরজের ধারেকাছে আসতে পারেননি। কিন্তু জানেন কি, ফাইনালে নীরজের প্রথম থ্রোয়ের আগে নীরজ তাঁর প্রধান ‘অস্ত্র’ জ্যাভলিনটাই খুঁজে পাচ্ছিলেন না। তেমনই গল্প শোনালেন খোদ নীরজ।

নীরজ জানিয়েছেন, তিনি সেদিন তাড়াহুড়ো করে প্রথম থ্রো করেছিলেন। তাঁর কথায়, “ফাইনাল শুরু হতে চলেছিল এবং আমি আমার জ্যাভলিন পাচ্ছিলাম না। ঠিক তখনই আমি আমার জ্যাভলিনটিকে পাকিস্তানি জ্যাভলার আরশাদ নাদিমের হাতে দেখতে পেলাম। তারপর আমি তার কাছ থেকে জ্যাভলিনটি চেয়ে বলি— ‘ভাই, ওটা আমার জ্যাভলিন।’ উনি তখন আমাকে জ্যাভলিনটি দেয়। তা নিয়ে আমি তাড়াহুড়ো করে থ্রোটি করি।”

যদিও, নিরোজের এই মন্তব্যের পর লোকজন বলতে শুরু করেছেন যে, পাকিস্তানি জ্যাভলার নাকি ইচ্ছাকৃত এই কাজটি করেছেন। যদিও ভারতীয় জ্যাভলার তাঁদের একহাত নিয়েছেন। এই বিষয়ে নীরজ জানিয়েছেন, আরশাদ নাদিম কোনও নিয়ম ভাঙেননি। তিনি যা করেছেন, তা নিয়মসীমার মধ্যেই করেছেন। নীরজ টুইট করেছেন, “আমি আপনাদের সবাইকে অনুরোধ করছি আমার কমেন্টকে নিয়ে আপনারা কোনও নোংরা অ্যাজেন্ডা বানাবেন না। খেলাধুলা আমাদের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থাকতে শেখায় এবং মন্তব্য করার আগে খেলার নিয়মগুলি জানা গুরুত্বপূর্ণ।” ট্যুইটে একটি ভিডিয়ো শেয়ার করে এই কথাগুলি বলেছেন নীরজ চোপড়া।

নীরজ এবং আশরাফ দীর্ঘদিন ধরে প্রতিদ্বন্দ্বী। তা সত্ত্বেও, তাঁরা একে-অপরকে সম্মান করে। ২০১৮ সালের এশিয়ান গেমসেও দু’জন মুখোমুখি হয়েছিল। সেখানে নীরজ সোনা এবং আশরাফ ব্রোঞ্জ পদক জিতেছিলেন। আরশাদ নাদিম টোকিও অলিম্পিকে পঞ্চম স্থানে ছিলেন। এহেন আরশাদ সম্পর্কে নীরজ বলেছেন, “যোগ্যতা অর্জন পর্বে ভালো পারফরম্যান্স করেছিলেন নাদিম। ফাইনালে পদক না পেলেও ভালো থ্রো করেছিলেন তিনি। ওর জন্যই পাকিস্তানে জ্যাভলিন জনপ্রিয়তা পেয়েছে। আমার ধারণা আগামী দিনে নাদিম আরও ভালো পারফরম্যান্স করবেন। ”

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *