ইশরাত জাহান এনকাউন্টার: ক্রাইম ব্রাঞ্চের ৩ কর্মকর্তাকে খালাস আহমদাবাদ সিবিআই আদালতের

Mysepik Webdesk: গুজরাতের বিখ্যাত ইশরাত জাহান এনকাউন্টার মামলায় সিবিআই আদালত দুই ক্রাইম ব্রাঞ্চের প্রাক্তন কর্মকর্তা গিরিশ সিংহল, তরুণ বারোট এবং বর্তমান এসআই অঞ্জু চৌধুরিকে খালাস করেছে। আদালত বলেছে যে, লস্কর-ই-তৈয়েবার সন্ত্রাসী ইশরাত জাহান। ইন্টেলিজেন্স রিপোর্টকে তাই কোনওভাবেই অস্বীকার করা যাবে না। তাই তিনজনই কর্মকর্তাকে নির্দোষ হিসাবে বেকসুর খালাস করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: মৃত প্রভাকরণ ভীষণভাবে জীবিত আছেন তামিলনাড়ু নির্বাচনে

২০০৪ সালের পর, গুজরাত সরকার ইশরাত জাহান এনকাউন্টার মামলায় আইপিএস জি এল সিংহল, অবসরপ্রাপ্ত ডিএসপি তরুণ বারোট এবং সহকারী উপ-পরিদর্শক অঞ্জু চৌধুরির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে অস্বীকৃতি জানায়। বুধবার একই মামলায় দায়ের করা আবেদনের শুনানি পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। এই মামলায় আদালত বলেছিল যে, ইশরাত জাহান সন্ত্রাসী ছিলেন বলে প্রমাণ রয়েছে এবং ক্রাইম ব্রাঞ্চের কর্মকর্তারা তাঁদের দায়িত্ব পালন করেছিলেন।

আরও পড়ুন: গুজরাতে বাড়ছে করোনার দাপট, চার শহরে নাইট কারফিউর সময়কাল ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানো হল

২০০৪-এর ১৪ জুন ইশরাত জাহান, জাভেদ শেখ, আমজাদ রাম ও জিশান জোহর আহমদাবাদের কোটারপুর ওয়াটার ওয়ার্কসের কাছে পুলিশি এনকাউন্টারে মারা গিয়েছিল। গোয়েন্দা রিপোর্ট অনুসারে, এই সমস্ত সন্ত্রাসী সংগঠন লস্কর-ই-তৈয়েবার সঙ্গে যুক্ত ছিল এবং গুজরাতের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে হত্যার ষড়যন্ত্র করেছিল। ইশরাত জাহানের মা সামিমা কাউসার ও জাভেদের বাবা গোপীনাথ পিল্লাই সিবিআই তদন্তের জন্য হাইকোর্টে আবেদন করেছিলেন। এরপরে হাইকোর্ট বিষয়টি তদন্তের জন্য এসআইটি গঠন করে। এরপর বেশ কয়েকজন পুলিশ অফিসারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তবে, সিবিআই আদালত আজ তার রায় শোনাল।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *