মাত্র ১৩ বছরে ‘কিক বক্সিং’-এ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নের মুকুট জিতে জম্মু-কাশ্মীরের ‘বেগম’ তাজামুল

Mysepik Webdesk: শৈশব কেটেছে ভারতীয় উপমহাদেশের সবচেয়ে উত্তরের একটি ভৌগোলিক অঞ্চলটিতে চলা রাজনৈতিক অস্থিরতার ছায়ায়। ধাপে ধাপে বহু নতুন চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হতে হয়েছে তাকে। সমস্ত চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে মাত্র ১৩ বছর বয়সে ‘কিক বক্সিং’-এ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নের মুকুট জিতে নিয়েছে জম্মু ও কাশ্মীরের তাজামুল ইসলাম। মিশরে অনুষ্ঠিত ‘কিক-বক্সিং’ বিশ্ব ইভেন্টে স্বর্ণপদক জিতে সাহস ও প্রতিভার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে তাজামুল।

আরও পড়ুন: ইতিহাসে প্রথমবার রাজস্থান থেকে দুই প্যারালিম্পিক ক্রীড়াবিদ খেলরত্ন পেতে চলেছেন

এই ইভেন্টে ভারতীয় খেলোয়াড়রা ১১টি সোনা, ৮টি রুপো এবং ৭টি ব্রোঞ্জ-সহ মোট ২৬টি পদক জিতেছে, তবে তাজামুলের পদক জয় নতুন রেকর্ড তৈরি করেছে। জম্মু ও কাশ্মীরের বান্দিপোরার ১৩ বছর বয়সি এই খেলোয়াড়ের বিশ্ব ইভেন্টে এটি দ্বিতীয় স্বর্ণপদক। এর আগে ২০১৬ সালে ইতালিতে অনুষ্ঠিত বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে সাব-জুনিয়র শিরোপা জিতেছিল তাজামুল।

যাত্রাটা অবশ্য তাজামুলের জন্য সহজ ছিল না। তার যখন পাঁচ বছর বয়স এই খেলায় যোগ দেওয়ার বায়না জুড়ে দিয়েছিল ছোট্ট মেয়েটি। তবে তার বাবা বেঁকে বসেছিলেন, মেয়ের চোট লেগে যাওয়ার ভয়ে। প্রথমদিকে বাবাকে রাজি করতে না পারলেও মাকে কিন্তু রাজি করিয়ে নিতে পেরেছিল মেয়েটি। এরপর অবশ্য বাবাও তাতে রাজি হয়ে যান। তার বাবা একজন গাড়িচালক এবং মা একজন গৃহিণী।

আরও পড়ুন: রানাঘাটের শরীরচর্চার ইতিহাস

জম্মুতে ২০১৫-তে প্রথমবার রাজ্য স্তরের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছিল এই খুদে তনয়া। সাব-জুনিয়র বিভাগে স্বর্ণপদক জেতার পাশাপাশি প্রতিযোগিতার সেরা খেলোয়াড়ও নির্বাচিত হয়েছিল তাজামুল। এই সাফল্যের পর পরিবারের পূর্ণ সমর্থন পেয়ে যায় সে। ওই একই বছর জাতীয় পর্যায়ে সাব-জুনিয়র শিরোপা জয় এবং তারপর বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন (সাব-জুনিয়র) হয় তাজামুল।

অল্প বয়সে ব্যাপক সাফল্যের পর তাজামুল খেলাধুলার বিষয়ে উপত্যকার মানুষের মানসিকতা পরিবর্তন করতে সফল। সেখানে রীতিমতো তারকা সে। হায়দার স্পোর্টস অ্যাকাডেমি নামে বান্দিপোরায় নিজের ‘কিক-বক্সিং’ অ্যাকাডেমি খুলেছে সে। এখানে আশপাশের গ্রামের শতাধিক মেয়ে অনুশীলনের জন্য আসে।

আরও পড়ুন: মিতালি রাজের জন্য অনশনে বসেছিলেন তাঁর এক ভক্ত

তাজামুল মিশরে স্বর্ণপদক জয়ের পর তেরঙ্গা নিয়ে সেলিব্রেশন করার একটি ছবি পোস্ট করেছে। এর পর জম্মু ও কাশ্মীরের লেফটেন্যান্ট গভর্নর মনোজ সিনহা এই সাফল্যের জন্য তাজামুলকে অভিনন্দন জানান। তাজামুলের ছবি-সহ সিনহা টুইট করেছেন, “মিশরের কায়রোতে অনুষ্ঠিত বিশ্ব কিক-বক্সিং চ্যাম্পিয়নশিপ ২০২১-এ স্বর্ণপদক জিতে ইতিহাস তৈরি করার জন্য বান্দিপোরার তাজামুল ইসলামকে অনেক অভিনন্দন। আমাদের কিক-বক্সিং চ্যাম্পিয়ন বছরের পর বছর ধরে অসাধারণ পারফরম্যান্স করছে। তাজামুলের লক্ষ্য অলিম্পিকে দেশের জন্য সাফল্য আনা।” উল্লেখ্য যে, আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির ১৩৮তম অধিবেশনে ‘কিক-বক্সিং’কে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে, যাতে এই খেলাটি ভবিষ্যতে অলিম্পিকের অংশ হয়ে উঠতে পারে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *