প্রথম ফাস্ট বোলার হিসাবে ৬০০ উইকেট জিমির

Mysepik Webdesk: মঙ্গলবার ইংল্যান্ডের পেসার জেমস অ্যান্ডারসন টেস্ট ক্রিকেটে ৬০০ উইকেট পূর্ণ করেছেন। তিনি টেস্ট ক্রিকেটে একমাত্র ফাস্ট বোলার, যিনি ৬০০ উইকেট নেওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেছে। যদিও ক্রিকেট ইতিহাসে সামগ্রিকভাবে তিনি চতুর্থ বোলার। পাকিস্তানের বিপক্ষে তৃতীয় টেস্টের চতুর্থ দিনে দ্বিতীয় ইনিংসে তিনি আবিদ আলি (৪২)-কে আউট করে তাঁর ৫৯৯তম এবং আজাহার আলি (৩১)-কে আউট করে তাঁর ৬০০তম শিকার করেছিলেন।

আরও পড়ুন: দারিদ্র্যের শিকল ভেঙে অর্জুন পুরস্কার সারিকার

৬০০ উইকেটের ঠিকানায় অ্যান্ডারসন

মঙ্গলবার পাকিস্তানের বিপক্ষে তৃতীয় টেস্ট ম্যাচের পঞ্চম দিন মঙ্গলবার ইনিংসের ৬২তম ওভারের দ্বিতীয় বলে আউট হন পাকিস্তান অধিনায়ক আজাহার আলি। আন্ডারসনের বলে অধিনায়ক জো রুটের হাতে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন আজাহার। আজাহার ১১৪ বলে ২টি বাউন্ডারির সাহায্যে ৩১ রান করেন। দলগত ১০৯ রানের মাথায় আউট হন তিনি। পাকিস্তানের স্কোর তখন ১০৯।

আরও পড়ুন: পদত্যাগ হকি ইন্ডিয়ার হাই পারফরম্যান্স ডিরেক্টর ডেভিড জনের

কিছুদিন ধরেই খারাপ ফর্ম নিয়ে লড়াই করে যাচ্ছিলেন অভিজ্ঞ এই ফাস্ট বোলার। তবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ এবং তারপরে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করে সকলের মন জিতে নেন ‘জিমি’। তৃতীয় টেস্টের প্রথম ইনিংসে তিনি ৫ উইকেট নিয়েছিলেন। দ্বিতীয় ইনিংসে তিনি দু’টি উইকেট নিয়েছেন। তাঁর আগে রয়েছে শ্রীলঙ্কার মুথাইয়া মুরলীথরন (৮০০), অস্ট্রেলিয়ার শেন ওয়ার্ন (৭০৮) এবং ভারতের অনিল কুম্বলে (৬১৯)। মজার ব্যাপার হচ্ছে এই তিন বোলারই স্পিনার।

আরও পড়ুন: সিকিমে এবার বাইচুংয়ের নামে স্টেডিয়াম

ইংল্যান্ড প্রথম ইনিংসে আট উইকেটে ৫৮৩ রানের ইনিংস ডিক্লেয়ার করেছিল। এই বিশাল স্কোরের সামনে পাকিস্তান দলকে শুরু থেকেই নড়বড়ে দেখায়। দ্বিতীয় ইনিংসে ২৭৩ রানে অলআউট হয়ে ফলোঅনের আওতায় পড়ে তারা। জেমস অ্যান্ডারসন শান মাসুদ (৪), আবিদ আলি (১), বাবর আজম (১১), শফিক (৫) এবং নাসিম শাহ (০)-কে প্যাভিলিয়নের রাস্তা দেখান। তবে বৃষ্টিবিঘ্নিত এই টেস্টে ফলাফল হয়নি। চতুর্থ দিনেও খেলা শুরু হতে দেরি হয়। প্রথম দু’টি সেশন তো শুরুই করা যায়নি। পাকিস্তানের স্কোর যখন ৪ উইকেটে ১৮৩, অমীমাংসিত অবস্থায় শেষ হয় খেলা। সিরিজে ১-০ ব্যবধানে জয়ী হয় ইংল্যান্ড।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *