জোড়াবাগান নাবালিকা ধর্ষণকাণ্ড: পরিস্থিতি সামাল দিতে উপস্থিত শশী পাঁজা

Jora

Mysepik Webdesk: জোড়াবাগান কাণ্ড নিয়ে তুমুল এখন রাজ্য রাজনীতি। ইতিমধ্যে এই ঘটনায় এক সন্দেহভাজনকে আটক করেছে কলকাতা পুলিশ। এদিন বেলার সময় জোড়াবাগান এলাকায় উপস্থিত হয়েছেন তৃণমূল বিধায়ক ডক্টর শশী পাঁজা। তিনি জানিয়েছেন একজন সন্দেহভাজনকে ইতিমধ্যেই আটক করেছে পুলিশ। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। কিন্তু পরিস্থিতি জোড়াবাগান এলাকায় উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। মানুষ চাইছে দোষী বা আসামিকে তাদের হাতে তুলে দেওয়া হোক। কিন্তু শশী পাঁজা সবাইকে শান্ত থাকার আবেদন জানিয়েছেন। কোনভাবেই যেন পরিবেশ উত্তপ্ত না হয়ে ওঠে সেই দিকে লক্ষ্য রাখার কথা বলা হয়েছে।

আরও পড়ুন: বইপ্রেমীদের জন্য সুখবর, জুলাইতেই সেন্ট্রাল পার্কে বইমেলা

ইতিমধ্যে সেখানে কলকাতা পুলিশকে নিযুক্ত করা হয়েছে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার জন্য। সোমবার জোড়াবাগানে মামারবাড়িতে বেড়াতে এসেছিল ন’বছরের ছোট্ট মেয়েটি। বুধবার সেখানেই রাস্তায় খেলার সময় হঠাৎই উধাও হয়ে যায়। অভিযোগ, পরিবারের লোকজন থানায় গেলে পুলিশ তাদের জানায় ২৪ ঘণ্টার আগে কিছু করা সম্ভব নয়। বুধবার রাতভর ওই শিশুর খোঁজে ছুটে বেড়ায় বাড়ির লোকজন। বৃহস্পতিবার সকালে মামারবাড়ির পাশের বাড়ি থেকে উদ্ধার হয় তার গলা কাটা দেহ। গলার নলি কাটা, পরণে কোনও পোশাক নেই। পাওয়া গেছে চারটি ভাঙা দাঁত ও একমুঠো চুল।

আরও পড়ুন: ‘যদি আমাকে পছন্দ না হয়, তাহলে ভোট দেবেন না’, তফসিলি জাতি–উপজাতি সম্মেলনে মেজাজ হারালেন মুখ্যমন্ত্রী

এক রত্তি ওই মেয়ের এমন ভয়াবহ নৃশংস পরিণতিতে শিউরে ওঠে গোটা রাজ্য। পুলিশ,ফরেন্সিক টিম সকলেই নিজেদের মতো করে তদন্ত শুরু করে। সেভাবে জোরাল কোনও সূত্র মেলেনি। এরপরই ঘটনার তদন্তভার নিজেদের হাতে তুলে নেয় কলকাতা পুলিশ। তবে এই নিয়ম গতকাল অর্থাৎ বৃহস্পতিবার তৃণমূল বিজেপির মধ্যে সংঘর্ষ দেখা যায় জোড়াবাগানে। বিজেপির দাবি তৃণমূলের লোকজন এই কাজ করেছে। তবে কে বা করা নৃশংস কাজ করেছে তার কোন সঠিক প্রমাণ এখনো মেলেনি।

Similar Posts:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *