জুনিয়র বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপ: লং জাম্পে রুপোর পদক জিতলেন ‘ঝাঁসির রানি’ শৈলী সিং

Mysepik Webdesk: টোকিও অলিম্পিকে ভারতীয় অ্যাথলেটরা অসাধারণ পারফরম্যান্স করে সাতটি পদক এনে দিয়েছেন। নীরজ চোপড়া ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ডে দেশকে প্রথম সোনা এনে দিয়েছেন। কিন্তু তারপরেও ভারতীয় অ্যাথলেটরা উজ্জ্বল। বিশ্ব অনূর্ধ্ব-২০ অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপ মেয়েদের লং জাম্পে শৈলী সিং রুপোর পদক জিতেছেন। এই চ্যাম্পিয়নশিপে এটি ভারতের তৃতীয় পদক।

আরও পড়ুন: এশিয়ান জুনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপ: সেমিফাইনালে উঠে পদক নিশ্চিত চার ভারতীয় বক্সারের

১৭ বছর বয়সি উদীয়মান লং জাম্পার শৈলী ৬.৫৯ মিটার লাফ দিয়ে রুপোর পদক জয়ী হয়েছেন। মাত্র ১ সেন্টিমিটারের জন্য স্বর্ণপদক মিস করেন তিনি। শৈলী অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপের ইতিহাসের প্রথম ভারতীয় অ্যাথলেট, যিনি লং জাম্পে ভারতকে প্রথম পদক এনে দিলেন। সুইডেনের ১৮ বছর বয়সি মাজা অসকাগ ৬.৬০ মিটার লাফিয়ে সোনার পদক জিতেছেন।

ঝাঁসির বাসিন্দা শৈলী মহিলাদের লং জাম্প ফাইনাল প্রথম এবং দ্বিতীয় প্রচেষ্টায় ৬.৩৪ মিটার লাফিয়েছিলেন। এরপর তৃতীয় প্রচেষ্টায় তিনি যেন নিজেকেও ছাপিয়ে গেলেন। ৬.৫৯ মিটার লম্বা লাফ দিলেন তিনি। যদিও তাঁর চতুর্থ এবং পঞ্চম প্রচেষ্টা ফাউল হয়ে যায়। শেষ প্রচেষ্টায় শৈলী জাম্প করেন ৬.৩৭ মিটার। এহেন শৈলী সিং ৬.৪০ মিটার জাম্প করে প্রতিযোগিতার ফাইনালে পৌঁছেছিলেন।

আরও পড়ুন: প্রয়াত হলেন ১৯৬০ রোম অলিম্পিকে ভারতীয় ফুটবল দলের সদস্য, বিশিষ্ট কোচ ও ফিফা রেফারি এস এস হাকিম

শৈলীকে এখন থেকেই পরবর্তী আন্তর্জাতিক ভারতীয় তারকা হিসেবে ভাবা হচ্ছে। তাঁর সাফল্যের পিছনে মায়ের বড় হাত রয়েছে। তাঁর মা সেলাইয়ের কাজ করে জীবিকা নির্বাহের মাধ্যমে শৈলীর খেলাধুলার খরচ জুগিয়ে গিয়েছেন। গরিবি যাতে মেয়ের স্পোর্টস কেরিয়ারে বাধা সৃষ্টি না করে, সেই জন্য শৈলীর মা ভণিতা দেবীর আত্মত্যাগ সত্যিই তুলনাহীন। শৈলী বর্তমানে অঞ্জু ববি জর্জ অ্যাকাডেমিতে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। অঞ্জুর স্বামী ববি জর্জ শৈলীর কোচ। শৈলী জুন মাসে ৬.৪৮ মিটার লাফ দিয়ে জাতীয় (সিনিয়র) আন্তঃরাজ্য চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ী হয়েছিলেন। নতুন ‘ঝাঁসির রানি’ কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-২০ বিশ্ব অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপ শেষদিনে পদক জিতে ভারতকে গর্বিত করেছেন।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *