উঠতে পারে কাশ্মীর প্রসঙ্গ, সংসদে ইমরান খানের বক্তব্যের কর্মসূচি বাতিল করল শ্রীলঙ্কা সরকার

Mysepik Webdesk: পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ২২ ফেব্রুয়ারি দুই দিনের সফরে শ্রীলঙ্কা যাচ্ছেন। এর আগে তাঁর শিডিউলে সেখানকার সংসদে বক্তৃতা দেওয়ার বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত ছিল। তবে শেষ মুহূর্তে শ্রীলঙ্কা সরকার সংসদে পাক প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ দেওয়ার কর্মসূচি বাতিল করে দিয়েছে। সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, গোতাবায়া রাজাপক্ষে সরকারের আশঙ্কা যে, ইমরান খান তাঁর বক্তৃতাকালে কাশ্মীরের মতো সংবেদনশীল ইস্যু তুলতে পারেন এবং এর ফলে ভারত-শ্রীলঙ্কার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিতে পারে।

আরও পড়ুন: ভ্যাকসিন ঠিকমতো কাজ করছে না, সিরাম ইনস্টিটিউটের ১০ লক্ষ ডোজ ফেরত পাঠাতে উদ্যোগী দঃ আফ্রিকা

শ্রীলঙ্কা ও ভারতের ঐতিহাসিক সম্পর্ক রয়েছে। অতিমারি চলাকালীন ভারত প্রথমে এই প্রতিবেশী দেশে ওষুধ পাঠিয়েছিল এবং পরে ৫ লক্ষ টিকাও পাঠায়। এমন পরিস্থিতিতে রাষ্ট্রপতি গোতাবায়া রাজাপক্ষে এবং প্রধানমন্ত্রী মহিন্দা রাজাপক্ষের সরকার ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক নষ্ট করতে চান না। উল্লেখ্য যে, প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর ইমরান খান প্রথমবারের মতো শ্রীলঙ্কা সফর করছেন। এখানে তিনি রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন।

খবরে বলা হয়েছে যে, কোভিড-১৯ ইস্যুতে ইমরান খানের বক্তব্যের কর্মসূচি বাতিল করেছে শ্রীলঙ্কা সরকার। শ্রীলঙ্কা সরকারের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গিয়েছে, সংসদে ইমরানের বক্তব্য নিয়ে সরকার ও বিরোধী দলগুলির মধ্যে দীর্ঘ আলোচনা হয়েছিল। এই সময়ে উঠে আসে যে, ইমরান কাশ্মীর বিষয়ে কথা বলতে পারেন। যারফলে ভারতের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি ঘটাতে পারে শ্রীলঙ্কার।

আরও পড়ুন: আরব আমিরাতের প্রথম রাষ্ট্রদূত নির্বাচিত হলেন মহম্মদ মাহমুদ আল খাজা

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী এবং তাঁর মন্ত্রীরা প্রায় প্রতিটি আন্তর্জাতিক ফোরামে কাশ্মীর ইস্যু উত্থাপন করছেন। গতবছর ভারত সার্ক দেশগুলির ভার্চুয়াল বৈঠক ডেকেছিল। বৈঠকের অ্যাজেন্ডাটি ছিল করোনাভাইরাস এবং এটি মোকাবিলায় পারস্পরিক সহযোগিতা থেকে উদ্ভূত পরিস্থিতি। তবে এর মধ্যেও ইমরানের মন্ত্রী কাশ্মীর প্রসঙ্গ তুলেছিলেন।

ভারতের রাষ্ট্রপতি নরেন্দ্র মোদি ২০১৫ সালে এই প্রতিবেশী দেশটির সংসদে ভাষণ দিয়েছিলেন। শ্রীলঙ্কা সরকার সম্প্রতি ট্রেড ইউনিয়ন ও বিরোধীদের চাপে একটি বন্দর প্রকল্প বাতিল করেছে। ভারত, জাপান এবং শ্রীলঙ্কা মিলে এই প্রকল্পটি সম্পন্ন করার কথা ছিল।

Similar Posts:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *