সাইকেল লেনের প্রস্তাব খারিজ করল কলকাতা পুলিশ

Cycle Lane in Kolkata

Mysepik Webdesk: ধীরে ধীরে বাড়বে পথচালিত মানুষের সংখ্যা। ফলে সরু রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করতে অসুবিধেই পড়তে হবে। এমনই যুক্তি দেখিয়ে কলকাতা ডেভলেপমেন্ট অথরিটির (কেএমডি) প্রস্তাব খারিজ করে দিল কলকাতা ট্র্যাফিক পুলিশ।

আরও পড়ুন: ৬ মাস বন্ধ থাকার পর অবশেষে খুলে দেওয়া হচ্ছে রাজ্যের চিড়িয়াখানা ও জঙ্গল পর্যটন

করোনাভাইরাসের জেরে আমজনতাকে যাতায়াতের নাকানি চোবানি ক্ষেতে হচ্ছিল। রাস্তায় পর্যাপ্ত পরিমাণের গাড়ির অভাবে গত জুনে শহরের নির্ধারিত রাস্তায় সাইকেল চালানোর অনুমতি দিয়েছে রাজ্যের মন্ত্রিসভা। সেই সঙ্গে কেএমডি নির্দিষ্ট সাইকেল লেন তৈরির প্রস্তাব পাঠিয়েছিল পুলিশের কাছে।

তবে শুক্রবার ট্র্যাফিক পুলিশের এক শীর্ষকর্তা জানিয়েছেন, ‘এই মুহূর্তে শহরে সাইকেল লেন তৈরি করা সম্ভব নয়। শহরের রাস্তার বাঁ-দিক নির্ধারিত থাকে বাসের জন্য। যদি সাইকেল লেন তৈরি করতে হয়, তা একেবারে বাঁ-দিকে ঘেঁষে হতে হবে। তার ফলে বাসগুলিকে রাস্তার মাঝে সরিয়ে দিতে হবে। তাহলে যাত্রীরা কোথায় দাঁড়াবেন? এমনিতেই রাস্তায় অসংখ্য গাড়ি চলাচল করে। শহরের পরিকাঠামো খুব বেশি উন্নত না হলেও প্রতিদিনই রাস্তায় গাড়ির বহর বাড়ছে।’ এমনিতেই শহরের একাংশে সাইকেল চালানোর ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। তবে সেন্ট্রাল অ্যাভনিউ ও রাসবিহারী অ্যাভিনিউয়ের মতো রাস্তায় আবার রাত ১১ টা থেকে সকাল সাতটা পর্যন্ত সাইকেল চালানো যায়।

আরও পড়ুন: কৃতজ্ঞতা স্বরূপ মিলটন রশিদকে সংবর্ধনা পুরোহিতদের

ট্র্যাফিক পুলিশের ওই শীর্ষকর্তা আরও জানিয়েছেন, ‘শহরের ফুটপাথ দখল করে রেখেছেন হকাররা। তার জেরে মানুষকে রাস্তার বাঁ-দিক দিয়ে হাঁটতে হয়। সঙ্গে আছে গাড়ি ও বাইকের পার্কিং জোন। সাইকেল লেনের কথা তো ভুলে যান, ভালোভাবে হাঁটার জন্যই পর্যাপ্ত পরিসর নেই। যদিও পথচলতি মানুষের কিছু হয়ে যায়, তখন ট্র্যাফিক পুলিশকে দায়ী করা হবে।’

কেএমডিএয়ের এক আধিকারিক জানিয়েছেন, ‘প্রস্তাব খারিজ করার কারণ দিয়েছে ওরা (পুলিশ)। নির্দিষ্ট সাইকেল লেনের ফলে শহরের কয়েকটি অংশে রাস্তার পরিসর কমে যেতে পারে এবং ট্র্যাফিকের অবস্থা খারাপ হতে পারে।’

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *