Latest News

Popular Posts

বড়দিনে লঞ্চ হল দুনিয়ার সবচেয়ে শক্তিশালী টেলিস্কোপ

বড়দিনে লঞ্চ হল দুনিয়ার সবচেয়ে শক্তিশালী টেলিস্কোপ

Mysepik Webdesk: ২৫ ডিসেম্বর ফ্রেঞ্চ গায়ানার লঞ্চিং বেস থেকে আরিয়ান রকেটের মাধ্যমে লঞ্চ হল নাসার জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপ। এই টেলিস্কোপটি তৈরি করেছে নাসা, ইউরোপিয়ান স্পেস এজেন্সি এবং কানাডিয়ান স্পেস এজেন্সি। এতে খরচ হয়েছে প্রায় ৭৫ হাজার কোটি টাকা। বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী টেলিস্কোপ এটি। এই টেলিস্কোপ মহাকাশ থেকে পৃথিবীতে উড়ে আসা নভযানকে সহজেই শনাক্ত করতে পারে।

আরও পড়ুন: ৩০ হাজারেরও বেশি স্যাটেলাইট দিয়ে ঘিরে ফেলা হচ্ছে পৃথিবীকে!

এটি ১৯৯০ সালে মহাকাশে পাঠানো হাবল টেলিস্কোপের চেয়ে ১০০ গুণ বেশি শক্তিশালী। এর মাধ্যমে মহাবিশ্বের প্রাথমিক যুগে গঠিত গ্যালাক্সি, উল্কা ও গ্রহগুলিও শনাক্ত করা সম্ভব হবে। এই টেলিস্কোপ মহাবিশ্বের রহস্য উদ্‌ঘাটনের পাশাপাশি এলিয়েনদের উপস্থিতি শনাক্ত করবে। বিজ্ঞানীরা মহাবিশ্বের অনেক অমীমাংসিত রহস্যই সমাধানের চেষ্টা করবেন এর মাধ্যমে।

টেলিস্কোপের অপটিক্সে সোনার সূক্ষ্ম স্তর দিয়ে প্রলেপ দেওয়া হয়েছে। এই স্তরটি টেলিস্কোপকে ঠান্ডা রাখবে। তাছাড়াও ক্যামেরাগুলিকে সূর্যের উত্তাপ থেকে রক্ষা করতে এতে টেনিস কোর্টের আকারের ৫ লেয়ারের সানশিল্ড বসানো হয়েছে। টেলিস্কোপের ব্যাস ২১ মিটার। এই প্রোগ্রামটি মার্কিন ইতিহাসের বৃহত্তম আন্তর্জাতিক মহাকাশ বিজ্ঞান প্রকল্প। এর নামকরণ করা হয়েছে নাসার দ্বিতীয় প্রধান ‘জেমস ওয়েব’-এর নামে। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে এই টেলিস্কোপে অনেক উন্নত প্রযুক্তিও যুক্ত করেছে নাসা। এটি মহাবিশ্বের অনেক রহস্য উদ্ঘাটন করতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: একটানা ১২ দিন মহাকাশে কাটিয়ে পৃথিবীতে ফিরলেন জাপানের ধনকুবের ইউসাকু মায়েজাওয়া

জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপকে হাবল টেলিস্কোপের উত্তরসূরি বলে মনে করা হয়। ১৯৯০ সালের এপ্রিলে নাসা তার প্রথম স্পেস টেলিস্কোপ হাবলকে মহাকাশে স্থাপন করেছিল। এই টেলিস্কোপের সাহায্যে মহাবিশ্বের বয়স ১৩ থেকে ১৪ বিলিয়ন বছরের মধ্যে অনুমান করা হয়েছিল। তবে ৬ মাস আগে হঠাৎ করে কাজ করা বন্ধ করে দেয় হাবল স্পেস টেলিস্কোপ। এখন হাবল টেলিস্কোপের জায়গায় জেমস ওয়েব স্পেস টেলিস্কোপ এসে ক্ষতি পুষিয়ে দেবে বলেই আশাবাদী নাসার বিজ্ঞানীরা।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *