উত্তরপ্রদেশে রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবি তুললেন আইনজীবীরা

Mysepik Webdesk: হাথরসের দলিত তরুণীর গণধর্ষণ করে খুনের প্রতিবাদে পথে নামলেন গাজিয়াবাদের কয়েক’শো আইনজীবী। রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন তুলে উত্তরপ্রদেশে রাষ্ট্রপতি শাসনের দাবি জানালেন তাঁরা। তাঁদের দাবি, দলিত তরুণীর গণধর্ষণের ঘটনায় যে বর্বরতা প্রকাশ্যে এসেছে, তাতে রাজ্যে মহিলাদের ওপর অত্যাচারের ঘটনা চরম পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে। শুধু উত্তরপ্রদেশ নয়, এই ঘটনায় গোটা দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে। এই ঘটনার পর যোগী সরকারের ক্ষমতায় থাকার যোগ্যতা নেই, অবিলম্বে মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ করা উচিত। পাশাপাশি উত্তরপ্রদেশে দ্রুত রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করতে হবে।

আরও পড়ুন: অক্টোবর মাসে এই দিনগুলিতে ব্যাঙ্ক বন্ধ থাকবে, বিড়ম্বনায় পড়ার আগে জেনে নিন

বৃহস্পতিবার তাঁরা অধিবক্তা সংঘর্ষ সমিতির ব্যানার হাতে জন-আদালত থেকে মিছিল করে জেলা কালেক্টরেটের অফিস পর্যন্ত যান। তাঁরা রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের কাছে একটি স্মারকলিপি পাঠানোর জন্য জেলাশাসক অজয়শংকর পান্ডের কাছে জমা দেন। ওই মিছিলে যোগী সরকার বিরোধী স্লোগানের পাশাপাশি যোগী আদিত্যনাথের কুশপুত্তুলিকাও দাহ করেন। এদিন বিক্ষোভকারী আইনজীবীদের নেতৃত্বে ছিলেন আইনজীবী নাহার সিং যাদব। তিনি জানান, যোগী সরকার রাজ্যে বিশেষকরে মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধ দমনে চূড়ান্ত ব্যর্থ।

আরও পড়ুন: ময়নাতদন্তে ধর্ষণের কোনও চিহ্ন পাওয়া যায়নি, হাথরস কাণ্ডে দাবি উত্তর প্রদেশে পুলিশের

বিক্ষোভকারী আইনজীবীদের দাবি, সুপ্রিম কোর্ট অথবা হাইকোর্টের একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতির তত্ত্বাবধানে হাথরসের ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত করতে হবে। পাশাপাশি মামলাটিকে দ্রুত বিচার কোর্টে পাঠিয়ে নিস্পত্তি করতে হবে। সেইসঙ্গে নির্যাতিতা তরুণীর পরিবারের নিরাপত্তার দায়িত্বও সরকারকে নিতে হবে। তাছাড়া নির্যাতিতার পরিবারের একজনকে সরকারি চাকরি, ওই পরিবারকে দিল্লিতে একটি বাড়ি এবং ২ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *