রানাঘাটে মতুয়া মহা সম্মেলনে মমতা বালা ঠাকুর

Mysepik Webdesk: “বিজেপি মতুয়াদের হিন্দু বলেই মানে না। ওরা মতুয়াদের নিয়ে রাজনীতি করছে।” শুক্রবার নদীয়ার বগুলা শ্রীকৃষ্ণ কলেজের মাঠে অল ইন্ডিয়া মতুয়া মহাসঙ্ঘের উদ্যোগে আয়োজিত মতুয়া মহা সম্মেলনে যোগ দিয়ে সাংবাদিকদের কাছে এ কথাই বলেন প্রাক্তন সাংসদ মমতা বালা ঠাকুর। এদিন তিনি স্পষ্ট বলেন, “২০১৯ সালে ওরা ভোটের সময় মতুয়াদের নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। অথচ এখনও পর্যন্ত ওরা মতুয়াদের নাগরিকত্ব দিতে পারল না। আসলে নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্য ওরা যে আবেদন করতে বলেছে, তার জন্য যে ডকুমেন্টের প্রয়োজন, সেটা মতুয়াদের জোগাড় করা অসুবিধাজনক। আসলে বিজেপি মতুয়াদের ভাওতা দিচ্ছে।”

আরও পড়ুন: জাকিরকে জেড ক্যাটাগরির সুরক্ষা দেওয়ার চিন্তাভাবনা রাজ্যের

বিজেপি নেতা অমিত শাহর কলাপাতায় ভুরিভোজের কড়া সমালোচনা করে মমতা বালা ঠাকুর বলেন, “কলাপাতায় খেয়ে উনি বোঝাতে চাইছেন যে উনি আমাদের খুব আপন। কিন্তু বিষয়টা মতুয়ারা বুঝে গেছেন। তারা এটাও জানেন, তাদের আপন হল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি মতুয়াদের জন্য অনেক কিছু করেছেন। তার মধ্যে অন্যতম হল হরিচাঁদ গুরুচাঁদ ঠাকুরের নামে বিশ্ববিদ্যালয়। রেল মন্ত্রী থাকাকালীনই তাঁর মতুয়াদের সঙ্গে সখ্যতা ছিল । আগাগোড়াই তিনি মতুয়াদের উন্নয়নের কথা ভেবে এসেছেন। তাই এবারের ভোটে মতুয়ারা তাঁর সঙ্গেই থাকবে।”

আরও পড়ুন: আজ-কালের মধ্যেই বীরভূমে আসছে কেন্দ্রীয় বাহিনী

এদিন এলিয়েনের সম্মেলনে মমতা বালা ঠাকুর-সহ ছিলেন মতুয়া মহাসঙ্ঘের সর্বভারতীয় নেতা প্রমথরঞ্জন বোস, রানাঘাট উত্তর পূর্ব বিধানসভার বিধায়ক সমীর কুমার পোদ্দার ছাড়া আরও অনেকেই। এর আগেও রানাঘাট উত্তর পূর্ব কেন্দ্রের মহা সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল। আজ অবশিষ্ট অংশের মহাসম্মেলন অনুষ্ঠিত হল। আগের দিনের মতো আজও দুপুরে মধ্যহ্নভোজ এবং প্রতিটি আগত দলকে ধুতি-গামছা দিয়ে সংবর্ধিত করে, নিশান ,কাশি, ডঙ্গা উপহার হিসেবে তুলে দেন বিধায়ক সমীর কুমার পোদ্দার। আগত মতুয়া সম্প্রদায়ের উচ্ছ্বাস এবং মমতা বালা ঠাকুরের বক্তব্যর মধ্য দিয়ে স্পষ্ট, আসন্ন বিধানসভায় সমীর কুমার পোদ্দারকে জিতিয়ে নিয়ে আসার মধ্য দিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর হাত শক্ত করতে চান তারা।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *