নোংরা খেলা বন্ধ করুন: আলাপন-ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে সরব মমতা

Mysepik Webdesk: রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে বদলি করার বিষয়ে কেন্দ্রের সিদ্ধান্তকে প্রতিহিংসা পরায়ণ রাজনীতির সঙ্গে তুলনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি এদিন নবান্ন থেকে কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে সরব হন। তিনি অভিযোগ করেন, মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় যেখানে রাজ্যকে করোনার গ্রাস থেকে বের করে আনার চেষ্টা করছে, সেখানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ক্রমাগত রাজ্যকে বদনাম করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন। নির্বাচনে হার তাঁরা মেনে যেতে পারছেন না, সেই কারণেই কেন্দ্রের এই ধরণের আচরণ করছেন তাঁরা।

আরও পড়ুন: অবশেষে উদ্ধার হল সোদপুরের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় নিখোঁজ চারজনের দেহ

এদিন নবান্ন থেকে একটি সাংবাদিক সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ইতিমধ্যেই আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের বদলি আটকানোর রাজ্য সরকার কেন্দ্রকে চিঠি দিয়েছে। সাংবাদিক বৈঠকে মমতা প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর আমার ওপর যদি রাগ থাকে, যদি আমাকে আপনার পা ধরতে হয়, বাংলার মানুষের জন্য আমি তাও করতে রাজি। এই নোংরা খেলা বন্ধ করুন। রাজ্যের সঙ্গে বিনা আলোচনায় কীভাবে বদলি করতে পারেন আপনি? আলাপনের দোষটা কোথায়? দয়া করে অবিলম্বে মুখ্যসচিবের চিঠি প্রত্যাহার করুন। মুখ্যসচিবকে দিল্লি তলবের নির্দেশ প্রত্যাহার করুন। মুখ্যসচিবকে রাজ্যে কাজ করতে দিন। আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় একজন বাঙালি বলে এত রাগ কেন? বাংলার মানুষের উপর আপনার এত রাগ কেন?”

আরও পড়ুন: আলাপনকে ছাড়া যাবে না, কেন্দ্রের সঙ্গে আলোচনা করতে পারে নবান্ন

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আরও বলেন, “প্রধানমন্ত্রী অন্য রাজ্যে যাবেন বলেই পশ্চিমবঙ্গে আসেন। আমরা তাঁর সঙ্গে গিয়ে দেখা করি। গতকাল আমি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছিলাম। আমার সফর ঘোষণার পরই আমি জানতে পারি উনি আসছেন। দুর্গত এলাকায় যাওয়ার কর্মসূচি আমি আগেই ঘোষণা করেছিলাম। প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দফতর সংবাদমাধ্যমকে ভুল খবর দিয়েছে। তাঁর সঙ্গে দেখা করার জন্য আমাদের দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়। আমাদের হেলিকপ্টার আকাশে প্রায় ২০ মিনিট চক্কর কাটে। ১ মিনিট দেখা করতে চাই। প্রথমে আমাদের বলা হয়েছিল শুধু প্রধানমন্ত্রী-মুখ্যমন্ত্রী বৈঠক হবে। বৈঠক নিয়ে ঠিকমতো বার্তা দেওয়া হয়নি। পরে দেখলাম বিরোধী দলনেতারা আগেই পৌঁছে গিয়েছেন বৈঠকে।” মমতার কথায়, আমরা ভোটে জিতেছি বলে কী আমাদের সঙ্গে এই ধরণের আচরণ করা হচ্ছে? আপনারা কী হার হজম করতে পারছে না, তাই এমন আচরণ করছেন? এভাবে আমাদের অপমান করবেন না। জনতার রায় মেনে নিন। আপনি শুধু আমাকে নয়, আমার সচিবদেরও হয়রান করছেন। আইএএস আধিকারিকরা মর্মাহত। অত্যন্ত দু:খ লেগেছে।”

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *