কলকাতা পুরসভার জঞ্জালের স্তূপ থেকে উদ্ধার নেতাজির বহু দুষ্প্রাপ্য নথি

Mysepik Webdesk: কলকাতা পুরসভার জঞ্জাল থেকে উদ্ধার হয়েছে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর বহু দুষ্প্রাপ্য নথি। পুরসভার সূত্র থেকে জানা গেছে যে, তৎকালীন সময়ে কলকাতা পুরসভার এক্সিকিউটিভ অফিসার ছিলেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু। ওই সময় অর্থাৎ ১৯২৫ সালে নেতাজি গ্রেপ্তার হয়েছিলেন। এই গ্রেপ্তারির ফলে নেতাজি ১৫ মার্চ থেকে ৩০ জুন পর্যন্ত পুরসভার কাজে যোগদান করতে পারেননি। যদিও চারমাসের মতো অতিরিক্ত ছুটির জন্য সেই সময় মঞ্জুর করে দিয়েছিলেন পুর কর্তৃপক্ষ। বলা হয়েছিল যে, পুরো বেতন তিনি চাইলেই পেতে পারেন। যদিও নেতাজি জানিয়েছিলেন যে, যে সময়টায় তিনি কলকাতা পুরসভার কাজ করেননি, সেই সময়কার কোনও বেতন তিনি নেবেন না। পুরসভা নেতাজির ইচ্ছাকে সম্মান জানিয়েছিল। এরপর একটি প্রস্তাব গ্রহণ করেছিল পুরসভা। জন জলের মধ্যে থেকে উদ্ধার হয়েছে সেই দলিল।

আরও পড়ুন: সুভাষ-স্মরণে আজ থেকেই পথ চলা শুরু করবে ‘নেতাজি এক্সপ্রেস’

এখানেই শেষ নয়। ১৯৪৬ সাল। সেই সময় কলকাতার নাম বদলে সুভাষনগর রাখার প্রস্তাব গৃহীত হয়েছিল। তার প্রামাণ্য নথিও পাওয়া গেছে জঞ্জালের স্তূপ থেকে। পুরসভার মেয়র থাকাকালীন নেতাজিকে যে সময় গ্রেপ্তার করা হয়েছিল, সেই সময় রাজ্যবাসী গ্রেপ্তারির বিরুদ্ধে এক অভিনব প্রতিবাদ জানিয়েছিল। তৎকালীন সময় কালী পূজার সময় ঘরে কোনও প্রদীপ জ্বলেনি। মানুষের আতশবাজি জ্বালানোয় কোনও মন ছিল না। রাজ্যবাসী পালন করেছিল ‘ডাক দীপাবলি’। প্রাপ্ত নথি থেকে জানা গিয়েছে, সে বছর কেবলমাত্র সেন্ট পলস ক্যাথিড্রাল ছাড়া কলকাতায় কোনও বাড়িতে দীপ জ্বলেনি। প্রাপ্তির ডালি এখানেই শেষ নয়। জঞ্জাল থেকে উদ্ধার হয়েছে ১৯৪৬ সালের কলকাতা দাঙ্গায় গৃহহারা মানুষদের তালিকা, ১৯২৫ সালে কলকাতার যৌনপল্লিগুলির সমীক্ষা রিপোর্ট কিংবা ১৯৪৫ সালে কলকাতায় যে রিকশা বনধ হয়েছিল, সেসব দুষ্প্রাপ্য অজানা তথ্য।

সূত্র এই সময়

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *