মারাকানা স্টেডিয়ামের নাম হবে রেই পেলে স্টেডিয়াম!

Mysepik Webdesk: ব্রাজিলের মর্যাদাপূর্ণ মারাকানা স্টেডিয়ামের নাম কিংবদন্তি ফুটবলার পেলের নামে রাখা হবে। মঙ্গলবার রিও ডি জেনেইরোতে রাজ্য আইনসভার ভোটের পর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় স্টেডিয়ামটির নাম হবে পেলের পুরো নামে। অর্থাৎ স্টেডিয়ামের নতুন নাম হবে এদসন আরান্তেস দো নাসিমেন্তো, সংক্ষেপে ‘রেই পেলে’ স্টেডিয়াম। পর্তুগিজ শব্দ ‘রেই’-এর অর্থ হল ‘রাজা’। উল্লেখ্য, রিও ডি জেনেরিওর রাজ্য রাজ্যপালকে আধিকারিক হওয়ার আগেই নাম পরিবর্তনের বিষয়টিতে আনুষ্ঠানিক অনুমোদন দিতে হবে।

আরও পড়ুন: ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টি-২০ সিরিজে ছিটকে যেতে পারেন নটরাজন ও বরুণ

ব্রাজিলের হয়ে খেলোয়াড় হিসাবে তিনটি বিশ্বকাপ জয়ী পেলে ১৯৬৯ সালে ভাস্কো দা গামার বিপক্ষে সান্টোসের হয়ে এই স্টেডিয়ামেই তাঁর এক হাজারতম গোল করেছিলেন পেলে। মারাকানা ১৯৫০ ও ২০১৪ সালে বিশ্বকাপের ফাইনাল আয়োজন করেছিল। ২০১৬ সালের অলিম্পিক গেমসের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানও অনুষ্ঠিত হয়েছিল এই ঐতিহ্যবাহী স্টেডিয়ামে।

১৯৫০ সালের বিশ্বকাপ ফাইনালে ব্রাজিলের কাছে উরুগুয়ের কাছে হার দেখার জন্য ২ লক্ষেরও বেশি দর্শক স্টেডিয়ামে উপস্থিত হয়েছিলেন। কিন্তু রেজাল্ট হয়েছিল উল্টো। ফাইনালে ব্রাজিল ১-২ গোলে হেরে যায় উরুগুয়ের কাছে। স্টেডিয়ামটির বর্তমান ধারণক্ষমতা এখন ৭৮,৮৩৮। মারাকানা স্টেডিয়ামের নাম মারিও ফিলহোর নামানুসারে রাখা হয়েছিল, যিনি ১৯৪০-এর দশকে স্টেডিয়ামটির নির্মাণের পক্ষে তদ্বির করেছিলেন। ফিলহো পেশায় ছিলেন একজন সাংবাদিক।

আরও পড়ুন: নিশীথ সূর্যের দেশে ক্রিকেট

আইনসভা জানিয়েছে যে, স্টেডিয়ামের নাম পরিবর্তন করা হলেও এর ভেতরে মাঠের চারপাশে বিশাল স্পোর্টস কমপ্লেক্স বর্তমান নামই বহন করবে। নাম বদল পরিকল্পনার সঙ্গে যুক্ত একজন শীর্ষ কর্মকর্তা বলেছেন, “এমন একজন ফুটবল ব্যক্তিত্বকে শ্রদ্ধা যাঁকে গোটা বিশ্ব একডাকে চেনে। ব্রাজিলিয়ান ফুটবলের জীবন্ত কিংবদন্তি হিসাবে তিনি সবসময় দেশের হয়ে কাজ করে গিয়েছেন।” তবে একটা জায়গায় সমস্যা বেধেছে। ব্রাজিলীয়রা স্টেডিয়ামটিকে আদর করে ডাকে না মারাকানা স্টেডিয়াম। তাই আদরের ডাকে অন্য কোনও নাম বসাতে সায় নেই অনেকেরই।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *