গণহারে টিকাকরণ ভুল সিদ্ধান্ত, এতেই শক্তি বাড়ছে করোনার, দাবি নোবেলজয়ী ভাইরোলজিস্টের

Mysepik Webdesk: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-সহ বিশ্বের তাবড় তাবড় বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, করোনা অতিমারীকে রুখে দেওয়ার একমাত্র উপায় হল গণহারে টিকাকরণ। করোনার সঙ্গে লড়াই করতে এখনও পর্যন্ত গোটা বিশ্বে যে কটি ভ্যাকসিন আবিষ্কার হয়েছে, প্রতিটি দেশই যত শীঘ্রই সম্ভব, যত বেশি মানুষকে সম্ভব সেই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু তার মধ্যেও ভ্যাকসিনের বিষয়ে নেতিবাচক মন্তব্য করলেন ফ্রান্সের নোবেলেজয়ী ভাইরোলজিস্ট লুক মন্টেগ্রিয়র (Luc Montagnier)। তাঁর এই মন্তব্যে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে গোটা বিশ্বে।

আরও পড়ুন: গ্রেফতারের পর প্রথমবার আদালতে দেখা গেল অং সান সু কি-কে

তিনি জানান, বেশি বেশি মানুষ ভ্যাকসিন নেওয়ার ফলে আসলে হীতে বিপরীত হচ্ছে। তাঁর মতে কোনও ভ্যাকসিনই ভাইরাসকে বেশিদিন আটকে রাখতে পারে না। উল্টে সেই ভাইরাস জিনের পরিবর্তন ঘটিয়ে আরও বেশি শক্তিশালী হয়ে যায়। অর্থ্যাৎ তাঁর সাফ কথা, ভ্যাকসিনেশনের ফলে করোনার আরও শক্তিশালী ভ্যারিয়েন্ট তৈরি হচ্ছে। টিকাকরণের ফলে মানুষের শরীরে যে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়, তা ভাইরাসকে হয় অভিযোজন করতে, নয়তো মারা যেতে বাধ্য করে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অভিযোজনের ফলেই ভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট তৈরি হয়ে যায়। তাঁর দাবি, গবেষকরা এই বিষয়ে সবই জানেন, কিন্তু ব্যবসায়িক খাতিরেই তাঁরা একথা প্রকাশ্যে আনেন না।

আরও পড়ুন: কঙ্গোয় লাভা আতঙ্ক

তাঁর এই মন্তব্য আবার একদল বিজ্ঞানী সঠিক বলেই স্বীকার করেছেন। তাঁরা জানান, করোনাভাইরাসের ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে, বিশ্বে করোনা যখন কিছুটা স্তিমিত ছিল, তখনিই বিশ্বজুড়ে বেশ কয়েকটি ভ্যাকসিন অনুমোদন পেয়েছে। বহু দেশে টিকাকরণ শুরু হয়। ঠিক তারপরেই ভাইরাসটির নতুন নতুন ভ্যারিয়েন্ট তৈরি হতে শুরু করে। নতুন ভ্যারিয়েন্টগুলি আগের চেয়েও বেশি শক্তিশালী। যদিও মন্টেগ্রিয়রের এই দাবি অনেকেই উড়িয়ে দিলেও আবার অনেকেই বিশ্বের করোনা পরিস্থিতির সঙ্গে এর মিল খুঁজে পেয়েছেন।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *