Latest News

Popular Posts

মেসি অনবদ্য, তবু জয় অধরা আর্জেন্টিনার

মেসি অনবদ্য, তবু জয় অধরা আর্জেন্টিনার

Mysepik Webdesk: তিনি গোল করলেন। ৯৬ বছরের পুরনো রেকর্ডকেও স্পর্শ করলেন। আরও এক কীর্তি গড়ে ছুঁলেন অন্য এক রেকর্ডও। অথচ এত কিছু করার পরেও তাঁর দল জিততে পারল না। এই ট্র্যাজিক ফুটবলারটি লিওনেল মেসি। তাঁর দেশ আর্জেন্টিনা এদিন জয় অধরা রেখেই তাদের কোপা অভিযান শুরু করল। গ্রুপ ‘বি’র ম্যাচে তাদের প্রতিপক্ষ ছিল চিলি। ৩৩ মিনিটের মাথায় মেসির ‘ম্যাজিকাল’ বাঁ-পায়ের নিখুঁত ফ্রি-কিকে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। কিন্তু তা সত্ত্বেও চিলির কাছে ১-১ গোলে আটকে যায় আন্দিজ পর্বতমালাবেষ্টিত বিশ্বের অষ্টম বৃহত্তম দেশটি।

আরও পড়ুন: ‘কোভিড-বিধ্বস্ত’ ভেনেজুয়েলাকে ৩-০ গোলে হারিয়ে কোপায় যাত্রা শুরু ব্রাজিলের

দিয়েগো মারাদোনাকে স্মরণ করে শুরু হয় এই ম্যাচ। ১৯৮৬-র বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ককে দেওয়া হয় দেখবার মতো শ্রদ্ধাঞ্জলি। জাজ্বল্যমান লাইটিং এবং চমকদার এফেক্ট ডিসপ্লেতে স্মরণ করা হয় ‘হ্যান্ড অফ গড’কে। এমনই মঞ্চে আর্জেন্টিনার ফুটবলারদের বেশ সংকল্পবদ্ধ লাগছিল। ৪-৩-৩ ফরম্যাটে রিও ডি জেনিরোর অলিম্পিক স্টেডিয়ামে দল নামিয়েছিলেন আর্জেন্টিনা কোচ লিওলেন স্কোলানি। অন্যদিকে, চিলির কোচ মার্টিন লসার্তেও দল নামিয়েছিলেন ৪-৩-৩, একই ছকে। ম্যাচের লড়াই চলছিল তুল্যমূল্য। এরইমধ্যে মেসি ছুঁয়ে ফেলেছেন আর্জেন্টিনার জার্সি গায়ে সর্বোচ্চ ছ’বার কোপা আমেরিকায় খেলার রেকর্ড। রেকর্ডটি এতদিন এককভাবে আমেরিকো তেসোইরের দখলে ছিল। তবে আপাতদৃষ্টিতে মনে হতে পারে ‘এলএম১০’ তেসোইরের রেকর্ড স্পর্শ করেছেন, কিন্তু আদতে সংখ্যাতত্ত্বের দিক থেকে কিন্তু রেকর্ডটিকে অন্য ভাবে ভেঙে দিয়েছেন মেসি। কারণ, তেসোইরে ১৯২০ থেকে ১৯২৫ এই ছয় বছরে ছ’টি কোপা খেলেছিলেন। সেখানে মেসি ১৪ বছরে খেলেছেন ছ’টি কোপা।

আরও পড়ুন: জ্যাঙ্গো, র‍্যাম্বো আর ফুটবল

এরপর আসে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ, যখন মেসি তাঁর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পর্তুগাল তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর রেকর্ড ভাঙলেন। কীভাবে? ফ্রি-কিক থেকে মেসি এই নিয়ে ৫৭তম গোল করলেন। অন্যদিকে, ‘সিআর৭’-এর ফ্রি-কিক থেকে করা গোলসংখ্যা ৫৬। এদিকে, চিলির বিরুদ্ধে গোলটির পর মেসির কেরিয়ারের গোলসংখ্যা পৌঁছল ৭৪৪-এ। তিনি রয়েছেন চতুর্থ স্থানে। তৃতীয় স্থানে ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি পেলে (৭৫৭), দ্বিতীয় স্থানে অস্ট্রিয়ান জোসেফ বিকান (৭৫৯) এবং প্রথম স্থানে রয়েছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো (৭৭৯)। এত কৃতিত্বের পরেও ম্যাচ থেকে মূল্যবান ৩ পয়েন্ট সংগ্রহ করতে পারেনি আকাশি-সাদা ব্রিগেড। দ্বিতীয়ার্ধের ৫৬ মিনিটে পেনাল্টি পায় চিলি। আর্জেন্টিনা গোলকিপার বাঁচিয়ে দিলেও ফিরতি বলে গোল করেন চিলির এদুয়ার্দো ভারগাস। সমতায় ফেরে চিলি। খেলা শেষ হয় অমীমাংসিত অবস্থায়।

লিওনেল মেসি ম্যাচের পরে ভিদালকে আলিঙ্গন করছেন। (কোপা আমেরিকা ছবিটি টুইট করেছে)

ম্যাচের পর আর্জেন্টিনা কোচ বলেন, “আমরা পরিষ্কার ছয় থেকে সাতটি গোলের সুযোগ তৈরি করেছিলাম। সেগুলি আমরা মিস করেছি। চিলি খুব ভালো একটা ড্র উপহার পেল। আজ আমরা যে সুযোগগুলো তৈরি করেছি, সেগুলো গোলে কনভার্ট করতে পারলে ৪ অথবা ৫-১ গোলে জিততে পারতাম। জয়ের সঙ্গে শুরু করাটা খুব জরুরি ছিল। আমরা জয় দিয়েই শুরু করতে চেয়েছিলাম। কঠিন একটি প্রতিপক্ষের সঙ্গে আমরা খেললাম। উরুগুয়ের বিরুদ্ধে এর পরের ম্যাচ আরও কঠিন হতে চলেছে। কোপা আমেরিকার শুরুতে দু’টি অত্যন্ত কঠিন ম্যাচ আমাদের।” উল্লেখ্য যে, ভারতীয় সময় ভোর সাড়ে ৫টায় ১৯ জুন উরুগুয়ের বিরুদ্ধে খেলতে নামবে আর্জেন্টিনা।

টাটকা খবর বাংলায় পড়তে লগইন করুন www.mysepik.com-এ। পড়ুন, আপডেটেড খবর। প্রতিমুহূর্তে খবরের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন। https://www.facebook.com/mysepik

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *