বাংলা দখলের লক্ষ্যেই গোটা দেশের ক্ষতি করলেন মোদি: মমতা

Mysepik Webdesk: রাজ্যে করোনা সংক্রমণের মাঝেই চলেছে বিধানসভা নির্বাচন। এদিকে রাজ্যজুড়ে হু হু করে বেড়ে চলেছে করোনা সংক্রমণ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ইতিমধ্যেই নির্বাচন কমিশন রাজ্যে কোনও ধরণের রাজনৈতিক সভা কিংবা প্রচারকার্য চালানোর ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করছে। শুধুমাত্র ভার্চুয়াল সভারই অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এদিন মুর্শিদাবাদে দলীয় প্রার্থীদের জন্য ভার্চুয়াল সভা করেন মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। সেই সভা থেকেই তিনি দেশজুড়ে করোনা সংক্রমণের কারণ হিসেবে সরাসরি দায়ী করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে।

আরও পড়ুন: এবার রাজ্যে বাধ্যতামূলক মাস্ক, আইন ভাঙলে কড়া পদক্ষেপ

এদিন বক্তব্য রাখতে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “শুধু বাংলা দখল করার লক্ষ্যে মোদি বাংলা সহ গোটা দেশের ক্ষতি করলেন। আমাদের রাজ্যের বরাদ্দ অক্সিজেনটাও উনি উত্তরপ্রদেশে নিয়ে চলে যাচ্ছে। ভ্যাকসিন নিয়েও কালোবাজারি শুরু হয়েছে। উনি শুধু ভাষণ দিচ্ছেন।” এরপরেই বাংলার ভোটের প্রসঙ্গ তুলে তিনি বলেন, ভোট আসতেই রাজ্যের এসপিদেরকে বদলে দিয়েছে। দু’টি লোক এখানে বসে পক্ষপাতদুষ্টতা করে চলেছে। ভোট মিটলেই আমি এদের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে যাব। আমরা মামলা করব নির্বাচন কমিশন যেন কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের আয়না হয়ে না থাকে। সুপ্রিম কোর্টের দু’জন বিখ্যাত আইনজীবী আইনজীবীর সঙ্গে কথা হয়েছে আমাদের। তাঁরা বলেছেন, আমাকে সবরকম সাহায্য করবেন। আমরা তো সরকারে আসছিই। তারপর আমিও দেখব, এই ইস্যু নিয়ে কতদূর যেতে পারি।”

আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু খড়দহের তৃণমূল প্রার্থীর

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অমিত শাহকে নিশানা করে তিনি বলেন, “অমিত শাহ গোটা দেশ থেকে সিআরএপিএফ তুলে এনেছে। আমি তো তৃতীয় দফা থেকে বলছি, এই পরিস্থিতিতে আট দফা ভোট করার প্রয়োজন নেই। কমিশনের পুলিশের অবজার্ভার বিবেক দুবে একজন অবসরপ্রাপ্ত অফিসার। তিনি কর্মরত অফিসারদের নিয়ন্ত্রণ করছেন। এটা বেআইনি। কিন্তু কমিশন কোনও কথাই শুনতে রাজি নয়। রাজ্যের পুলিশ কমিশন এলেই ওরা (রাজ্য পুলিশ) ঘুঘুর বাসায় ঢুকে পড়ে। ওরা ভাবে কমিশন যা বলছে তা অক্ষরে অক্ষরে পালন করবে। বাকি পাঁচ বছর যে কমিশনকে ছাড়াই থাকতে হবে সেটা ভুলে যায় ওরা।”

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *