ধনকুবেরের অর্থদান প্রকল্প

Mysepik Webdesk: এই পৃথিবীতে কোনও দানবীয় ধনকুবেরের কথা জানা খুব একটা অস্বাভাবিক কিছু নয়। তবে এমন এক বিলিয়নিয়ারকে খুঁজে পাওয়া অবশ্যই একটি চ্যালেঞ্জ, যিনি তাঁর সমস্ত অর্জিত সম্পদ দান করেছেন। চার্লস চক ফিনে নামক মার্কিন এক ধনকুবের বাঁচার জন্য ন্যূনতম প্রয়োজনের অতিরিক্ত উপার্জিত অর্থ দাতব্য কাজে ব্যয় করেছেন। এটি তাঁর বহু দিনের ইচ্ছা ছিল। বলা যায়, এভাবেই তিনি তাঁর স্বপ্নপূরণ করলেন।

আরও পড়ুন: দূষণের ফলেই বাড়ছে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা, চাঞ্চল্যকর দাবি বিশেষজ্ঞদের

ফোর্বসের এপ্রিল প্রতিবেদন অনুসারে, ৮৯ বছর বয়সি ফিনে ৮০০ কোটি ডলারের (ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৫৮ হাজার ৭১৯ কোটি টাকা) সম্পত্তি দান করেছেন বিশ্বের বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা হাসপাতাল এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে। ফোর্বসের প্রতিবেদনে তিনি বলেন, “আমার জীবনের অর্জিত সম্পদের ব্যবহার আমি অন্যরকমভাবে করতে চেয়েছিলাম। এই কাজ করতে পেরে আমি তৃপ্ত। আমরা অনেক কিছু শিখেছি। কিছু আলাদাভাবে করতে চেয়েছিলাম। তবে আমি খুব সন্তুষ্ট। আমি আমার জীবন ঘড়িতে এই কাজ সম্পন্ন করতে পেরে খুব ভালো লাগছে। এই যাত্রায় যারা আমাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছিল, তাদের সকলকে আমার ধন্যবাদ।”

আরও পড়ুন: যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রতিটি মৃত্যুর জন্যই দায়ী ট্রাম্প: বাইডেন

ফিনে তাঁর এবং তাঁর স্ত্রীর অবসর জীবনের জন্য প্রায় দুই মিলিয়ন ডলার রেখে বাকি সব টাকাই দান করেছেন। ২০১২ সালে তিনি ঘোষণা করেছিলেন, তাঁদের অবসর জীবনের জন্য ২০ লক্ষ ডলার রেখে দিয়ে বাকি সমস্ত সম্পত্তি দান করবেন। উল্লেখ্য যে, কলেজের সহপাঠী রবার্ট ওয়ারেল মিলানের সঙ্গে ডিউটি ফ্রি শপ খোলেন ফিনে। পরবর্তীতে দোকান দারুণ জনপ্রিয় হয়। বেশ জমজমাট হতে থাকে তাঁর ব্যবসা। ব্যবসার এতটাই জনপ্রিয়তা বাড়ে যে, মার্কিন কোটিপতিদের তালিকাতেও জায়গা হয়েছিল তাঁর। তবে এভাবে নয়, ইচ্ছা ছিল জীবদ্দশাতেই সমস্ত সম্পত্তি তিনি মানুষের কাজে লাগাবেন। গত ১৪ সেপ্টেম্বর অর্জিত সমস্ত সম্পত্তি দান করে ইচ্ছাপূরণ করলেন মার্কিন এই ধনকুবের।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *