কেকেআরের বিরুদ্ধে শেষ ১৩ ম্যাচে ১২ জয় মুম্বইয়ের

Mysepik Webdesk: মুম্বই ইন্ডিয়ান্স তাদের প্রথম ম্যাচটি জিতল। শেষ ম্যাচে রোহিত-ব্রিগেড পরাজিত হয়েছিল। আইপিএল ২০২১ মরশুমের পঞ্চম ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে ১০ রানে পরাজিত করেছে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। মুম্বাইয়ের হয়ে রাহুল চাহার ২৭ রানে ৪ উইকেট নিয়েছিলেন। ম্যান অফ দ্য ম্যাচ নির্বাচিত করা হয় তাঁকেই। কেকেআর ওপেনার নীতীশ রানা টানা দ্বিতীয় অর্ধশতক করেন। চলতি আইপিএল মরশুমের ২ ম্যাচে ১৩৭ রান করে শীর্ষতম স্কোরার রয়েছেন তিনি। মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে কলকাতার রেকর্ড আশাপ্রদ নয়। তারা এখন পর্যন্ত কেকেআরের বিপক্ষে ২৮টি ম্যাচে ২২ ম্যাচ জিতেছে এবং ৬টিতে হেরেছে। এটি গত ১৩ ম্যাচে কলকাতার বিপক্ষে মুম্বইয়ের ১২তম জয়।

আরও পড়ুন: জানেন কি, কেকেআরের জয়ের কাণ্ডারি নীতীশ রানা সম্পর্কে বলিউড অভিনেতা গোবিন্দার জামাই?

টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ১৫২ রানেই অলআউট হয়ে যায়। জবাবে কেকেআর ৭ উইকেট হারিয়ে ১৪২ রানে থমকে যায়। কলকাতার হয়ে নঈতীশ রানা ৪৭ বলে সর্বোচ্চ ৫৭ রানের ইনিংস খেলেন। রানা এখনও পর্যন্ত আইপিএলে ১৩টি অর্ধশতক করেছেন। শুভমান গিল ২৪ বলে ৩৩ রান করেছিলেন। মুম্বইয়ের পক্ষে, রাহুলকে বাদ দিয়ে ট্রেন্ট বোল্ট ২ এবং ক্রুনাল পান্ডিয়া একটি উইকেট নেন। ১৮ ওভারের তৃতীয় বলে বুমরাহ রাসেলের সহজ ক্যাচ হাতছাড়া করেন। ওভারটি ছিল ক্রুনাল পান্ডিয়ার। এই সময় রাসেল মাত্র ৫ রানে অপরাজিত ছিলেন। এর আগে ক্রুনাল নিজের বলেই রাসেলের ক্যাচ মিস করেন। দু’টি জীবনদান পেয়েও রাসেল সুবিধা করতে পারেননি।

আরও পড়ুন: দেশের প্রথম দল হিসাবে টিকা নিলেন ভারতীয় তিরন্দাজরা

কলকাতার ইনিংসের ১৪তম ওভারে বল করতে এসেছিলেন মুম্বই দলের অধিনায়ক রোহিত শর্মা নিজেই। রানআপের পর প্রথম বলের ঠিক আগে তিনি আহত হয়েছিলেন। তাঁর বাঁ-পায়ের গোড়ালি মুচড়ে যায়। যদিও ডাক্তারের শ্রুশ্রূষার পর তিনি সেরে ওঠেন। এরপরে রোহিত ওভারটি শেষ করেন। তিনি প্রায় ৬ বছর পর বোলিং করেছিলেন। তিনি শেষবার বল করতে দেখা গিয়েছিল ২০১৪ সালের ৭ মে। অন্যদিকে, মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের ইনিংসে সূর্যকুমার যাদব ৩৬ বলে অপরাজিত ৫৬ রান করেছিলেন। অধিনায়ক রোহিত শর্মা ৩২ বলে ৪৩ রান করেছিলেন। হার্দিক এবং ক্রুনাল করেন ১৫ রান। তাঁরা ছাড়া আর কোনও মুম্বই ব্যাটসম্যান দশজনের অঙ্ক ছুঁতে পারেননি। কলকাতার হয়ে আন্দ্রে রাসেল ৫টি এবং প্যাট কামিন্স নেন ২ উইকেট। প্রসিধ কৃষ্ণা, শাকিব আল হাসান এবং বরুণ চক্রবর্তী শিকার করেন ১টি করে উইকেট।

আরও পড়ুন: জাপানে বাড়ছে করোনা, স্বাস্থ্যমন্ত্রী বললেন বাতিল হবে না অলিম্পিক

কেকেআর অলরাউন্ডার আন্দ্রে রাসেল মাত্র ২ ওভার রান করে মুম্বই দলের পাঁচ ব্যাটসম্যানকে প্যাভিলিয়নে ফেরত পাঠান। এই ক্যারিবিয়ান ক্রিকেটার ২ ওভারে ১৫ রান দিয়ে ৫ উইকেট শিকার করেন। শেষ ওভারে তিনি ৩ জন খেলোয়াড়কে আউট করেছিলেন। রাসেল তাঁর স্বদেশি সতীর্থ কায়রন পোলার্ডের পাশাপাশি ক্রুনাল পান্ডিয়া, মার্কো জেনসেন, রাহুল চাহার এবং জসপ্রীত বুমরাহকে আউট করেন। যদিও তাঁর এই অসাধারণ পারফরম্যান্সও কেকেআর-কে ম্যাচ জেতাতে ব্যর্থ হয়।

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *