স্বামী স্ত্রীর ‘ফ্রেন্ডশিপ ক্লাব’, কলকাতার বুকে ওৎ পেতে হাতেনাতে ধরলেন মুম্বাই পুলিশ

Arrested

Mysepik Webdesk: সুন্দরী মহিলাদের সাথে বন্ধুত্ব করিয়ে দেওয়ার নাম করে কলকাতায় বসে মুম্বাইয়ের বাসিন্দাদের ফাঁদে ফেলে তাদের পকেট ফাঁকা করতো এক দম্পতি। অবশেষে জাল পেতে তাদের দুজনকেই কলকাতা থেকে গ্রেফতার করলো মুম্বাই পুলিশ। ধরা পড়লো ওই ঘটনায় জড়িত মূল অভিযুক্ত দম্পতি।

আরও পড়ুন: গার্লফ্রেন্ড নেই, কোন চিন্তা নেই মাত্র ১০ টাকায় পেয়ে যাবেন আপনার মনের মতো গার্লফ্রেন্ড

জয়দীপ দাস ওরফে দীপক নামের ওই অভিযুক্ত থাকতেন দক্ষিণ কলকাতার যাদবপুর এলাকার গড়ফায়। সাধারণত মুম্বাইয়ে বসবাসকারী ধনী ব্যক্তিদেরকেই টার্গেট করত তারা। টার্গেট করার আগে জেনে নিত ওই গ্রাহকের ‘প্রোফাইল’। গ্রাহককে সুন্দরী মহিলাদের সাথে বন্ধুত্ব করিয়ে দেওয়ার নাম করে ফোন করতেন দীপকের স্ত্রী। বন্ধুত্ব করার জন্যে নির্দিষ্ট ‘রেট’ও ছিল। একদিনের জন্যে বন্ধুত্ব করতে হলে গ্রাহককে দিতে হত ১৫ হাজার টাকা। বেশিদিন হলে সেক্ষেত্রে দেওয়া হত বিশেষ ডিসকাউন্ট। এমনকি মহিলাদের ভুয়ো ছবিও পাঠানো হত হোয়াটসঅ্যাপে। বন্ধুত্বের লোভে পড়ে কেউ টাকা দিয়ে দিলেই তার মোবাইল নম্বর ব্লক করে দেওয়া হত।

আরও পড়ুন: জানেন কি ভারতের মধ্যে প্রায় ৮ লক্ষ মানুষ পরকীয়ায় জড়িত, জেনে নিন সবথেকে এগিয়ে আছে ভারতের কোন শহর

মুম্বাইয়ের ইস্ট দাদর এলাকা থেকে এভাবে একের পর এক প্রতারণার অভিযোগ জমা পড়লে নড়েচড়ে বসেন স্থানীয় মুম্বাই থানার পুলিশ। কিন্তু কলকাতার কোন এলাকা থেকে এই প্রতারণা চলছে সেটা প্রথমে তারা ঠাওর করতে পারছিলেন না। প্রায় সাত দিন ধরে মুম্বাই পুলিশ এসে বসেছিলেন কলকাতায়। অবশেষে শুক্রবার রাতে মুম্বাই পুলিশের জালে ধরা পড়ে ওই প্রতারক দম্পতি। দুজনকেই গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানার চেষ্টা করা হচ্ছে কত টাকা তারা এভাবে আত্মসাৎ করেছে এবং আরও কারা কারা এই ঘটনার সাথে জড়িত।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *