কেন্দ্রের নির্দেশে হঠাৎ করে গান-বাজনা বন্ধ পানশালায়, রোজগারে টান পড়তে চলে সংগীতশিল্পীদের

Mysepik Webdesk: সারাদিন হাড়ভাঙা পরিশ্রম করে সন্ধেবেলায় যদি ভেবে থাকেন পানশালায় গিয়ে দুপাত্তর চড়িয়ে আপন মেজাজে সুমধুর কণ্ঠে গান শুনে সময় কাটাবেন, তাহলে সেগুড়ে বালি। আপাতত দেশের সবক’টি পানশালায় সংগীত পরিবেশন নিষিদ্ধ করল কেন্দ্রীয় আবগারি দপ্তর। যদিও দুর্গাপুজোর আগে শহরের বিভিন্ন পানশালা ও লাউঞ্জ বারে রাত ৮টা থেকে ৯টা পর্যন্ত গান-বাজনার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল, তবে আপাতত সেটাও বন্ধ করে দেওয়া হল। আর এতে বেজায় দুশ্চিন্তায় পড়েছেন হোটেল মালিক থেকে শুরু করে ব্যান্ড লিডার সংগঠনের কর্তারা তথা সংগীতশিল্পীরাও।

আরও পড়ুন: ভারতের মাটি ছুঁল আরও তিনটি রাফাল, স্বাগত জানাল ভারতীয় বায়ুসেনা

Music Band Performing - Picture of Trincas Restaurant and Bar, Kolkata -  Tripadvisor

যদিও এই ঘটনার পর লালবাজারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, এই ঘটনা সম্পর্কে তাঁরা বিন্দুবিসর্গ জানেন না। এমনকি কেন্দ্রের তরফ থেকে তাঁদের কাছে কোনও লিখিত নির্দেশিকাও আসেনি। তবে এই সিদ্ধান্তে যারা হোটেলে গান-বাজনা করে দু’পয়সা ইনকাম করে নিজেদের সংসার চালান, তাঁরা বর্তমানে অথৈ জলে।

আরও পড়ুন: ডিভোর্সের আবেদন করার দিন থেকেই খোরপোশ পাবেন স্ত্রী-সন্তান: সুপ্রিম কোর্ট

Dance bar ban: Maharashtra government to seek Opposition's help

এদিকে হোটেল মালিকদের বক্তব্য, করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধের সঙ্গে পানশালার গান-বাজনা বন্ধ করার কী যুক্তি থাকতে পারে, তা স্পষ্ট নয়। কারণ প্রত্যেকটি ক্ষেত্রেই হোটেলগুলিতে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা হচ্ছে। মাস্ক স্যানিটাইজারের পাশাপাশি ব্যবস্থা রাখা হয়েছে সামাজিক দূরত্বেরও। কিন্তু তবুও কেন যে এমন নির্দেশিকা এল, তা কিছুতেই বুঝে উঠতে পারছেন না এই পেশায় যুক্ত থাকা শিল্পী ও কলাকুশলীরা।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *