ছাঁটাই নীরজের কোচ: অজুহাত খারাপ পারফরম্যান্সের!

Mysepik Webdesk: ভারতীয় অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশন জ্যাভেলিনের জাতীয় কোচকে বরখাস্ত করার কথা ঘোষণা করেছে। ফেডারেশনের সাফাই, নীরজ চোপড়ার কোচ ইউয়ি হোনের পারফরম্যান্স ভালো ছিল না। নীরজদের জন্য দু’জন নতুন বিদেশি কোচ নিয়োগ করা হবে খুব শীঘ্রই। সোমবার, এমনটাই জানিয়েছেন ফেডারেশনের সভাপতি আদিল সুমারিওয়ালা। তিনি বলেন, “আমরা আরও দুই কোচ নিয়ে আসছি। তাঁরা ইউয়ি হোনের স্থলাভিষিক্ত হবেন। কারণ, আমরা তাঁর পারফরম্যান্সে খুশি নই। আমরা শট পুটার তেজিন্দরপাল সিং তুরের জন্যও একজন বিদেশি কোচ খুঁজছি।”

আরও পড়ুন: আকস্মিক পিতৃশোক সামলে কলকাতা লিগে মাঠে নামলেন পিয়ারলেসের ডিফেন্ডার আকাশ মুখার্জি

৫৯ বছর বয়সি ইউয়ি হোন জার্মানির বাসিন্দা। জ্যাভলিনে বিশ্বরেকর্ড গড়েছিলেন তিনি। তাঁর চুক্তি টোকিও অলিম্পিক পর্যন্তই ছিল। টোকিও অলিম্পিকের আগে জার্মান বিশেষজ্ঞ বার্টোনিৎসের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নীরজ চোপড়া অলিম্পিকে সোনার পদক জেতার পর ইউয়ি হোনকে কৃতিত্ব দিয়েছিলেন। ২০১৭-তে জাতীয় কোচ হিসাবে নিযুক্ত হয়েছিলেন হোন। তিনি নীরজ চোপড়া, শিবপাল সিং ও অন্নুরানীদের কোচিংয়ের দায়িত্ব সামলেছেন।

আরও পড়ুন: ওভারল্যাপ খ্যাত ভবানী রায় প্রয়াত: ময়দানে শোকের ছায়া

নীরজ চোপড়া ২০১৮ সালের এশিয়ান এবং কমনওয়েলথ গেমসে সোনার পদক জিতেছিলেন তাঁর কোচিংয়েই। নীরজকেও বলতে শোনা গিয়েছিল, “কোচ হোনের সঙ্গে যে সময়টা কাটিয়েছি আমি, তা দারুণ ছিল এবং আমি তাঁকে সম্মান করি। সেই বছরে (২০১৮), আমি কমনওয়েলথ গেমস এবং এশিয়ান গেমসে সোনা জিতেছি। হোনের প্রশিক্ষণের ধরন এবং কৌশল একটু ভিন্ন।” এর পর এর নীরজদের প্রশিক্ষণ দেন জার্মানিরই ক্লস বার্টোনিৎস। তাছাড়াও টোকিও অলিম্পিকের এক মাস আগে সাই এবং এএফআইয়ের ব্ল্যাকমেলের কারণে তিনি চুক্তি করতে বাধ্য হয়েছেন বলে মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ান। ইউয়ি হোনের আরও অভিযোগ ছিল যে, দেশের শীর্ষ ক্রীড়া সংস্থা স্পোর্টস অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (সাই) এবং ভারতীয় অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশন (এএফআই) টোকিও অলিম্পিক মেগা ইভেন্টের জন্য যাওয়া ক্রীড়াবিদদের প্রস্তুত করার জন্য যথেষ্ট কাজ করেনি।

আরও পড়ুন: কৌন বানেগা ক্রোড়পতিতে এবার বিগ বি-র সামনে নীরজ-শ্রীজেশ

‘দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’কে সাক্ষাৎকারে তিনি জানিয়েছিলেন, অলিম্পিকের জন্য প্রশিক্ষণ অপরিকল্পিত ছিল। উদীয়মান খেলোয়াড়দের দেওয়া খাবারও নাকি ঠিক ছিল না। ভারতে তাঁর প্রায় চার বছরের অভিজ্ঞতার কথা বলতে গিয়ে তিনি বলেছিলেন, “আমি যখন এখানে এসেছিলাম তখন ভেবেছিলাম আমি কিছু পরিবর্তন আনতে পারব। কিন্তু স্পোর্টস অথরিটি অফ ইন্ডিয়া (SAI) ও ভারতীয় অ্যাথলেটিক্স ফেডারেশন (AFI)-এর লোকজনদের সঙ্গে কাজ করে তা খুবই কঠিন। জানি না এটা জ্ঞানের অভাব নাকি অবহেলা।” যদিও দুই সংস্থার তরফেই হোনের এই অভিযোগ নাকচ করা হয়। শেষমেশ ছাঁটাই-ই করে দেওয়া হল তাঁকে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *