Latest News

Popular Posts

রেড রোডের সাধারণতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে দেখা গেল নেতাজি ট্যাবলো

রেড রোডের সাধারণতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে দেখা গেল নেতাজি ট্যাবলো

Mysepik Webdeskk: কলকাতা রেড রোডে কঠোর নিরাপত্তা এবং প্রটোকল অনুসরণ করে এ বছরের সাধারণতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠান ও প্যারেডের আয়োজন করা হয়েছে। সাধারণতন্ত্র দিবস উপলক্ষে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর রেড রোডে ভারতের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, স্পিকার বিমান ব্যানার্জি-সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। কুচকাওয়াজের স্যালুট গ্রহণ করেন রাজ্যপাল।

আরও পড়ুন: ফেব্রুয়ারি থেকে ফের বসছে চলেছে ‘দুয়ারে সরকার’ ক্যাম্প

কুচকাওয়াজে প্রধান আকর্ষণ ছিল নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ১২৫তম জন্মবার্ষিকীর ট্যাবলো। এটি আজাদ হিন্দ ফৌজের অবদানের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। দিল্লির কুচকাওয়াজে এই ট্যাবলোকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে। যদিও এ দিন বর্ণাঢ্য সংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের সঙ্গে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু ও তাঁর আইএনএ বাহিনী থিমযুক্ত ট্যাবলোকেও শামিল হতে দেখা যায়।

কলকাতার রাজপথে নেতাজির ট্যাবলো দেখে হাততালি দিতে দেখা যায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। ৫২ ফুট লম্বা, ১১ ফুট চওড়া, ১৬ ফুট উঁচু এই ট্যাবলোয় নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর দু’টি মূর্তি রয়েছে। সামনে রয়েছে নেতাজির আবক্ষ মূর্তি। সেখানে এলইডি-তে নেতাজি ও আইএনএ তথ্যচিত্র রাখা হয়েছে। এই ট্যাবলোটির পাশে মহাত্মা গান্ধি, রাজা রামমোহন রায়, ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাজী নজরুল ইসলাম, ভগৎ সিং, মাতঙ্গিনী হাজরা, বীরসা মুন্ডা, স্বামী বিবেকানন্দ ভীমরাও আম্বেদকরের মতো মনীষীদের ছবি ছিল।

আরও পড়ুন: করোনার কোপ! বড়োসড়ো ক্ষতির মুখে পাহাড়ের পর্যটন শিল্প

করোনা পরিস্থিতির কারণে, রেড রোডে সাধারণতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানটি ছিল মাত্র ৩০ মিনিটের। এই অনুষ্ঠানে দর্শকদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রেড রোডে গিয়ে শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। এর পরে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকরও পৌঁছন। তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সৌজন্য বিনিময় করেন। এরপর তেরঙ্গা উত্তোলিত হয়। শুরু হয় কুচকাওয়াজ। এ উপলক্ষে বাউল গান ও নৃত্যও আয়োজন করা হয়। সঙ্গে প্রদর্শিত হয় বিভিন্ন ট্যাবলো, তার মধ্যে সবচেয়ে আকর্ষণীয় ছিল নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ট্যাবলোটি।

টাটকা খবর বাংলায় পড়তে লগইন করুন www.mysepik.com-এ। পড়ুন, আপডেটেড খবর। প্রতিমুহূর্তে খবরের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন।

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *