প্রথম রূপান্তরকামী হিসাবে অলিম্পিক খেলবেন নিউজিল্যান্ডের লরেল হাবার্ড, জারি বিতর্কও

Mysepik Webdesk: প্রথম রূপান্তরকামী হিসাবে অলিম্পিকে যোগ্যতা অর্জন করলেন নিউজিল্যান্ডের লরেল হাবার্ড। অলিম্পিকে যোগ্যতা অর্জন করার পরে লরেলকে মহিলা দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। তিনি ভারোত্তোলনের ৮৭ কেজি ওজন বিভাগে অংশ নেবেন। লরেন ২০১৩-র আগে পুরুষদের প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছিলেন। যদিও, লরেলের মহিলা দলে অন্তর্ভুক্তি নিয়ে বিতর্ক অব্যাহত। সমালোচকদের মতে, লরেল কিছু ভুল সুবিধা পেয়েছেন। একইসঙ্গে নিউজিল্যান্ড অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের জারি করা এক বিবৃতিতে হাবার্ড বলেছেন, “নিউজিল্যান্ডের জনগণের প্রতি আমি কৃতজ্ঞ এবং তাঁদের ধন্যবাদ জানাই।”

আরও পড়ুন: শটপুটে টোকিও অলিম্পিকে যোগ্যতা অর্জন করলেন তেজিন্দর পাল সিং তুর

লরেলকে আন্তর্জাতিক অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের রূপান্তরকামীদের জন্য বিধি অনুসারে ২০১৫ সালে মহিলা দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ২০১৫ সালে আইওসি ট্রান্সজেন্ডারদের মহিলা দলে অংশগ্রহণ করার সুযোগ দিয়েছে। নিউজিল্যান্ড অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন এবং নিউজিল্যান্ড ওয়েট লিফটিং ফেডারেশন লরেলের সিলেকশনকে সমর্থন করে তাঁকে সমর্থন জানিয়েছে। নিউজিল্যান্ড অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার কারেন স্মিথ বলেন, “লরেল তাঁর নির্ধারিত যোগ্যতা পূরণ করেছেন, যা ট্রান্সজেন্ডারদের জন্য আইওসি-র বিধিও পূরণ করে। এমন পরিস্থিতিতে তাঁকে মহিলা দলে জায়গা দেওয়া ভুল নয়।” একইসঙ্গে নিউজিল্যান্ড ওয়েটলিফ্টিং অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান রিচি প্যাটারসন বলেন, “লরেল ২০১৮ সালে চোটের পর থেকে কঠোর পরিশ্রম করেছেন। আমরা তাঁর অলিম্পিক প্রস্তুতির জন্য আমাদের পূর্ণ সমর্থন জানাব এবং তাঁর কাছ থেকে পদক জয়ের আশা রাখব।”

লরেল তাঁর ওজন বিভাগে শীর্ষে রয়েছেন। তাই তাঁর কাছে পদক জয়ের প্রত্যাশা রয়েছে। কারণ আন্তর্জাতিক ভারোত্তোলন ফেডারেশনের নিয়মের অধীনে অলিম্পিকের একটি দেশের কেবলমাত্র একজন ওয়েটলিফটার অংশ নিতে পারেন। এমন পরিস্থিতিতে অনেক দেশের শীর্ষস্থানীয় ওয়েটলিফাররা অলিম্পিকে খেলতে পারবেন না। যে কারণে লরেলের পদক জেতার সম্ভাবনা প্রবল। সামোয়ার ২০১৯ প্যাসিফিক গেমসে লরেন স্বর্ণপদক জিতেছিলেন।

আরও পড়ুন: শেষ আটে আর্জেন্টিনা, দেশের হয়ে যৌথভাবে সর্বোচ্চ ম্যাচ খেলার রেকর্ড মেসির

লরেলকে মহিলা বিভাগে অন্তর্ভুক্ত করার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জারি রয়েছে। সমালোচকরা জানিয়েছেন যে, এটি মহিলা অ্যাথলেটদের প্রতি অন্যায়। অস্ট্রেলিয়ান মহিলা ক্রীড়া প্রচারকারী একদল আইনজীবী একটি বিবৃতি জারি করেছে― আন্তর্জাতিক অলিম্পিক ফেডারেশনের ভুল নীতিগুলির কারণে জন্মসূত্রে পুরুষ যাঁরা, মহিলাদের বিভাগে খেলার সুযোগ পাচ্ছেন তাঁরা। মহিলাদের বিভাগে কেবল মহিলা খেলোয়াড়দেরই সুযোগ পাওয়া উচিত। একইসঙ্গে প্যাসিফিক গেমসে লরেনের কাছে হার মানা সামোয়া ওয়েললিফটার বোস জানিয়েছেন, নিউজিল্যান্ডের দলে লরেলের অন্তর্ভুক্তি ডোপিং প্রচারের মতো।

২০১৮ গোল্ড কোস্ট কমনওয়েলথ গেমসের সময় অস্ট্রেলিয়ান ভারোত্তোলন ফেডারেশন প্রতিবাদ জানিয়েছিল এবং মহিলাদের বিভাগে লরেলের খেলার ওপর নিষেধাজ্ঞার দাবি করেছিল। তবে আয়োজক কমিটি এই দাবি প্রত্যাখ্যান করেছিল। পরে ইনজুরির কারণে লরেন টুর্নামেন্ট থেকে সরে এসেছিলেন।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *