অলিম্পিকের পদকপ্রাপ্তদের সম্মাননা: স্বর্ণপদক দেখিয়ে নীরজ বললেন, ‘সেদিন থেকে আমি পকেটে মেডেল নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছি’

Mysepik Webdesk: টোকিও অলিম্পিক পদকপ্রাপ্ত সব খেলোয়াড় দেশে ফিরে এসেছেন। দিল্লি বিমানবন্দরে নীরজ চোপড়া, রবি দাহিয়া, বজরং পুনিয়া, লভলিনা বড়গোঁহাই এবং পুরুষদের হকি দলকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানানো হয়েছিল। এই সমস্ত ক্রীড়াবিদকে দিল্লির অশোক হোটেলে সম্মানিত করা হয়েছিল। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ক্রীড়ামন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কিরেন রিজিজু, ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিক এবং ভারতীয় অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের (আইওএ) সভাপতি নরিন্দর বাত্রা।

আরও পড়ুন: ‘মিলা ছাপ্পর ফাড়কে’ নীরজের জন্য পুরস্কারের ছড়াছড়ি

অ্যাথলেটিক্সে স্বর্ণপদক জয়ী নীরজ চোপড়া মঞ্চে এসে প্রথমে নিজের পদক দেখান। তিনি বলেন, “এটা আমার নয়, পুরো দেশের পদক। মেডেল যেদিন এসেছে, সেদিন থেকে আমার খাওয়া-ঘুম নেই। যখনই আমি পদকের দিকে তাকাই, আমার মনে হয় সব ঠিক আছে। সেদিনের পর থেকে আমি আমার পকেটে মেডেল নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছি। সমর্থনের জন্য সবাইকে অনেক ধন্যবাদ। অলিম্পিক ছিল আমার জীবনের সবচেয়ে বড় সুযোগ ছিল। তা আমি খোয়াতে চাইনি।”

থ্রো সম্পর্কে নীরজ বলেছেন, “থ্রোয়ের আগে আমি ভেবেছিলাম যে, আমাকে আমার ১০০ শতাংশ দিতে হবে এবং কাউকে দেখে ভয় পাওয়া চলবে না। আমি সকল তরুণকে বলতে চাই যে, কাউকে ভয় পেও না। থ্রোয়ের পরেই আমি ভেবেছিলাম, এটি আমার ব্যক্তিগত সেরা থ্রোয়ের (৮৮ মিটার) চেয়ে কিছুটা কম (৮৭.৫৮ মিটার)।” বড় চুল নিয়ে তাঁকে প্রশ্ন করা হলে নীরজ বলেন যে, “৯-১০ বছর বয়স থেকে আমার বড় চুল রাখছি। কিন্তু ২-৩টি টুর্নামেন্টে এই চুল আমার বিরক্তির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এর পর চুল ছোট করে কেটে ফেলা হয়।”

আরও পড়ুন: নীরজের সাফল্য অভিনবভাবে পালন করলেন চণ্ডীগড় নিবাসী অটোচালক অনিল কুমার

অন্যদিকে বজরং পুনিয়া বলেন যে, “আমি কোনও নি-ক্যাপ ছাড়াই ব্রোঞ্জ মেডেল ম্যাচের শেষ বাউটিতে লড়েছি। আমি ভেবেছিলাম যে, আঘাত লাগলেও কিছু যায় আসে না, পরের দিন আমি বিশ্রাম নেব। আমি জানতাম, এই লড়াইটি আমার জীবন বদলে দিতে পারে। আমি আমার মনের কথা শুনলাম।” একইসঙ্গে লভলিনা বলেন যে, “আমি ২০২৪ প্যারিস অলিম্পিকে দেশের জন্য সোনা জেতার চেষ্টা করব।”

ক্রীড়ামন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর বলেন, “এই সন্ধ্যা হল সেই খেলোয়াড়দের সন্ধ্যা যাঁরা অলিম্পিকে ভারতের নাম উঁচু করেছে। আমি ১৩৫ কোটি মানুষের পক্ষ থেকে সকল পদক বিজয়ীদের অভিনন্দন জানাই। নীরজ চোপড়া, আপনি শুধু পদকই নয়, হৃদয়ও জিতেছেন। আপনারা সকল অ্যাথলেট নতুন ভারতের নতুন নায়ক। আমাদের খেলোয়াড়রা আগামী অলিম্পিকে আরও ভালো করবেন।”

আরও পড়ুন: ‘বাবা হয়তো স্বর্গে আনন্দে কাঁদছেন’: নীরজের সোনা জয়ের পর বললেন মিলখা-পুত্র

ক্রীড়ামন্ত্রী আরও বলেন, “আমরা আপনার জন্য সকল প্রকার সহযোগিতা করব। অলিম্পিকে সেরা হওয়ার আপনাদের প্রস্তুতিতে যা কিছু লাগবে, সেই সমস্ত কিছুই আপনাদের দেওয়া হবে।” কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কিরেন রিজিজু বলেন, “অলিম্পিক বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রীড়া প্রতিযোগিতা। এটা আমাদের জন্য গর্বের মুহূর্ত। আমি কোটি কোটি ভারতীয়দের পক্ষ থেকে সকল খেলোয়াড়দের অভিনন্দন জানাই।”

এবার ভারতীয় খেলোয়াড়রা টোকিও অলিম্পিকে ৭টি পদক জিতেছেন, যা এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ। এর আগে, ২০১২ সালের লন্ডন অলিম্পিকে ভারতীয় খেলোয়াড়রা ৬টি পদক জিতেছিলেন। ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ড ইভেন্টে প্রথমবারের মতো নীরজ ভারতের হয়ে স্বর্ণপদক জিতেছেন। মীরাবাই চানু ভারোত্তোলনে রৌপ্যপদক এবং ৬৫ কেজি ফ্রি স্টাইল কুস্তিতে রবি দাহিয়া রুপোর পদক জিতেছেন। অন্যদিকে, ভারতীয় পুরুষ হকি দল, ফ্রিস্টাইল কুস্তির ৬৫ কেজি ফ্রি স্টাইল বিভাগে বজরং পুনিয়া, ব্যাডমিন্টনে পিভি সিন্ধু এবং বক্সিংয়ে লভলিনা বড়গোঁহাই ব্রোঞ্জ পদক জিতেছেন।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *