১৬ জুন পরিবহণকর্মীদের বাস ডিপোতে উপস্থিত থাকতে নির্দেশ নবান্নের

Mysepik Webdesk: করোনার দ্বিতীয় ঢেউ দেশজুড়ে আছড়ে পড়ার পরেই দেশের একাধিক শহরে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছিল। বাদ যায়নি পশ্চিমবঙ্গও। সরাসরি লকডাউন ঘোষণা করা না হলেও বাংলায় একাধিক করোনা বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছিল। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল বাস, ট্যাক্সি, ট্রেনের মতো গণপরিবহন ব্যবস্থা। তবে ইদানিং গোটা দেশ তথা বাংলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসেছে। এবার ধাপে ধাপে একাধিক ক্ষেত্রে বিধিনিষেধ তুলে দেওয়া হচ্ছে। তবে এখনও পর্যন্ত রাজ্যজুড়ে সরকারি ও বেসরকারি বাস চালু করা হয়নি।

আরও পড়ুন: মালদায় গ্রেফতার চিনা নাগরিক ভারতে সাইবার হানার উদ্দেশ্যে ইংরেজি শিখেছিল, চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট

এই পরিস্থিতিতে আগামী ১৫ জুন শেষ হতে চলেছে বিধিনিষেধের মেয়াদকাল। সেক্ষেত্রে ১৬ তারিখ থেকে কি রাজ্যে বাস পরিষেবা চালু হতে চলেছে? এই প্রশ্নটাই এখন সবার মুখে মুখে। সূত্রের খবর, আগামী ১৬ জুন পরিবহনকর্মীদের সংশ্লিষ্ট ডিপোয় উপস্থিত থাকতে নির্দেশ দিয়েছে নবান্ন। তবে ওই দিন থেকে বাস চালু হবে কিনা, সেই বিষয়ে রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে এখনও পর্যন্ত কোনও ঘোষণা করা হয়নি। তবে বেশ কিছু স্পেশাল বাস চালু হতে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে। তারপর হয়তো ধাপে ধাপে বাড়ানো হতে পারে বাসের সংখ্যা।

আরও পড়ুন: ১৬ জুন রাজ্যে শেষ হচ্ছে বিধিনিষেধের বেড়াজাল, এমন জল্পনার মাঝে দেখে নিন কী কী ক্ষেত্রে পাওয়া যেতে পারে ছাড়

এদিকে রাজ্যে বাস পরিষেবা চালু করার আগেই বাস মালিক সংগঠনগুলি বাসভাড়া বাড়ানোর দাবি জানিয়েছে। কলকাতা সহ একাধিক জেলার বিভিন্ন এলাকায় পোস্টার দিয়ে ভাড়া বৃদ্ধির দাবি জানিয়েছেন বাসমালিকরা। সংগঠনের দাবি, জ্বালানির দামের পাশাপাশি আনুষঙ্গিক জিনিসপত্রের মূল্যবৃদ্ধির সঙ্গে সামঞ্জস্য বজায় রাখতে বাসভাড়া বৃদ্ধি করা ছাড়া তাদের আর কোনও উপায় নেই। ভাড়া বৃদ্ধির ফলে যাত্রীদের দুর্ভোগ হলেও তাদের কিছু করার নেয় বলেই জানিয়েছে সংগঠনগুলি। সেক্ষেত্রে রাজ্য সরকার যদি সদর্থক সিদ্ধান্তে না আসে তাহলে কলকাতা শহরে অন্তত তিন ভাগের এক ভাষা বাস উঠিয়ে নিতে হবে। পাশাপাশি কমিয়ে ফেলা হতে পারে রাজ্যের অন্যান্য জেলার বাস। এমনকি একাধিক রুটের বাসও বন্ধ করে দেওয়া হবে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *