ধর্নামঞ্চে মমতা, সারাদিন ধরে এঁকে ফেললেন একের পর এক ছবি

Mysepik Webdesk: সোমবার রাতে তৃণমূল সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তাঁর ওপর ২৪ ঘন্টার জন্য অর্থাৎ সোমবার রাত ৮টা থেকে মঙ্গলবার রাত ৮টা পর্যন্ত ভোট প্রচারের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন কমিশনের এই নিষেধাজ্ঞার জেরে এবং কমিশনের এহেন অগণতান্ত্রিক এবং অসাংবিধানিক সিদ্ধান্তের জন্য তিনি এদিন দুপুর ১২টা থেকে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে ধরনায় বসার ঘোষণা করেন। একটি টুইট করে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন একথা।

আরও পড়ুন: শীতলকুচি নিয়ে মন্তব্য, দিলীপ ঘোষকে নোটিশ ধরাল নির্বাচন কমিশন

এই নিয়ে অবশ্য বিস্তর জলঘোলা হয়েছে রাজ্য রাজনীতিতে। তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ এই কারণে নির্বাচন কমিশনকে বিজেপির শাখা সংগঠন বলে কটাক্ষ করতে ছাড়েননি। শুধু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নন, ৪৮ ঘন্টার ওই একই নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে বিজেপি নেতা রাহুল সিনহার ওপরেও। বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী এবং বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকেও পাঠানো হয়েছে নোটিস।

আরও পড়ুন: মঞ্চ ছাড়াই গাঁধি মূর্তির সামনে ধর্নায় বসলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

এদিন দুপুর ১১টা ৩৫ নাগাদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে ধরনা মঞ্চে উপস্থিত হতে লক্ষ করা যায়। তাঁকে মুখে কালো মাস্ক আর গলায় গামছা দিয়ে ধরনায় বসে ছবি আঁকতে দেখা যায়। যদিও তাঁর ধর্ণার জন্য আলাদা করে কোনও মঞ্চ তৈরি করতে দেখা যায়নি। কথা ছিল ওই জায়গায় সেনার তরফে এক প্রতিনিধি গিয়ে গোটা বিষয়টা দেখে এসে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে রিপোর্ট দিলে তবেই তাঁকে ধর্নায় বসার অনুমতি দেওয়া হবে কিনা সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে কেন্দ্রীয় বাহিনী। কিন্তু সেই অনুমতি আসার আগেই তিনি ওই স্থানে ধর্নায় বসে যান।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *