Latest News

Popular Posts

সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুর খবরে বাড়ির পুজো ফেলে হাসপাতালে ছুটে এসেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুর খবরে বাড়ির পুজো ফেলে হাসপাতালে ছুটে এসেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

Mysepik Webdesk: কালীপুজোর রাত। নিজের বাড়িতেই তখন ব্যস্ত ছিলেন পুজোতে। ঠিক তখনিই এল খারাপ খবর। প্রয়াত রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন-সহ চারটি দফতরের মন্ত্রী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দীর্ঘদিনের রাজনৈতিক সঙ্গী। সমস্ত আয়োজন ফেলে তড়িঘড়ি করে হাসপাতালে ছুটে এলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, সঙ্গে পরিবহনমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। রাত আটটা নাগাদ এসএসকেএম -এ আসেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসও। বেশ কিছুক্ষণ হাসপাতালের ভেতর কাটিয়ে বেরিয়ে এসে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “আলোর দিনে এরকম অন্ধকার নেমে আসবে ভাবতেও পারিনি। অনেক দুর্যোগ এসেছে, কিন্তু এটা ভীষণ বড় দুর্যোগ। সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের মতো মানুষ, এত প্রাণবন্ত তিনি। তাঁর মতো এতো পার্টি অন্ত প্রাণ আর হবে কিনা জানি না।”

আরও পড়ুন: মেয়র হিসেবে সুব্রত মুখোপাধ্যায় মাত্র পাঁচ বছরের খোলনলচে বদলে দিয়েছিলেন কলকাতার

তিনিই গতকাল জানান, আজ অর্থাৎ শুক্রবার সকাল নটা নাগাদ সুব্রত মুখোপাধ্যায় দেহ নিয়ে যাওয়া হবে রবীন্দ্র সদনে। দুপুর দুটোর পর সেখান থেকে তাঁর দেহ নিয়ে যাওয়া হবে তার বাড়িতে ও ক্লাবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ”সুব্রত দা-র মরদেহ আমার পক্ষে দেখা সম্ভব নয়। যাঁদের আমি খুব ভালোবাসি, তাঁদের দেহ আমি দেখতে পারি না। এই সেদিনও আমার সঙ্গে দেখা হল, হাসল। বলল, আবার জেলায় জেলায় যাব। কিন্তু হটাৎ করে কী যে হল। বিরাট হার্ট অ্যাটাক হল। ডাক্তাররা চেষ্টা করেছিলেন অনেক। দার্জিলিংয়েও এমন হয়েছিল একবার, অনেক কষ্ট করে আমরা ফিরিয়ে এনেছিলাম। কিন্তু এবার আর হল না।”

আরও পড়ুন: প্রয়াত মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়

প্রিয় সুব্রতদার মৃত্যুতে শোকাহত রাজ্যের পরিবহনমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমও। তিনি বলেন, ”সুব্রতদার মৃত্যুতে আমরা সবাই মর্মাহত।” মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস বলেন, ”সত্যিই অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেল বাংলার।” প্রসঙ্গত, গতকাল, দিওয়ালির দিন প্রয়াত হন রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। গত ২৪ অক্টোবর সকালে সকালে বাড়িতে থাকাকালীন অসুস্থ হওয়ার পর তাঁকে নিয়ে আসা হয় এসএসকেএম হাসপাতালে। শারীরিক পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপ হয়ে যাওয়ায় তাঁকে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সরোজ মণ্ডলের তত্ত্বাবধানে আইসিইউ-তে ভর্তি করা হয়েছিল। দুপুরের খাবার কাওয়ার আগেই হালকা বুকে ব্যথা অনুভব করেন তিনি। তারপরে বাথরুম থেকে ফেরার পরই তাঁর ম্যাসিভ কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হয়। এরপর সিপিআর দেওয়া হলেও আর সাড়া দেননি মন্ত্রী। তাঁর মৃত্যুতে রাজনৈতিক মহলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

টাটকা খবর বাংলায় পড়তে লগইন করুন www.mysepik.com-এ। পড়ুন, আপডেটেড খবর। প্রতিমুহূর্তে খবরের আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজটি লাইক করুন। https://www.facebook.com/mysepik

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *