ইয়াসে রাজ্যে মৃত্যু এক জনের

Mysepik Webdesk: ইয়াসের তান্ডবে রাজ্যে একজনের মৃত্যুর ঘটনা ঘটল। প্রবল জলোচ্ছ্বাসের জন্য বুধবার মন্দারমনিতে কানাই গিরি (৪৫) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। এছাড়াও তার সঙ্গে থাকা আরও এক ব্যক্তি গুরুতর আহত হন। তাঁকে দিঘা স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁর সশিরিক অবস্থা বর্তমানে স্থিতিশীল বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: ঘূর্ণিঝড় বিষয়ক সর্তকতার পাশাপাশি করোনা নিয়েও সতর্ক থাকুন, বিশেষ বার্তা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের

সূত্রের খবর, ঝড়ের পূর্বাভাসে অনেকের সঙ্গে তাঁকেও দিঘার কাছে একটি ট্রেনকেন্দ্রে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু ঝড়ের সময় তিনি জাল সংগ্রহ করতে বেরিয়েছিলেন। সেখানেই তিনি দুর্ঘটনার মুখোমুখি হন। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার জেলা শাসক পূর্ণেন্দু মাঝি জানিয়েছেন, যাসের প্রভাবে পূর্ব মেদিনীপুরের অন্তত ২৫টি ব্লক মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। খেজুরি, রামনগর ২, নন্দীগ্রাম, নন্দকুমার, মহিষাদলে ঝড়ের ব্যাপক প্রভাব পড়েছে। বহু গাছ পড়ে এলাকার রাস্তাঘাট বন্ধ হয়ে গিয়েছে। যুদ্ধকালীন তৎপরতায় এলাকায় উপড়ে পড়া গাছ কাটার কাজ চলছে।

আরও পড়ুন: ভেসে গেল দিঘা-মন্দারমণি থেকে গঙ্গাসাগর, প্লাবিত বাংলার বিস্তীর্ণ এলাকা

বুধবার সকাল ৭টা নাগাদ ঝড়ের তান্ডব শুরু হয় দিঘায়। সেই সঙ্গে চলতে থাকে অবিরাম বৃষ্টিপাত। তীব্র গতিতে বইতে থাকে ঝোড়ো হাওয়া। প্রবল জলোচ্ছ্বাসে বোল্ডার টপকে রাস্তায় চলে আসতে থাকে সমুদ্রের ঢেউ। গার্ডওয়াল টপকে দিঘা শহরে জল ঢুকতে শুরু করে। দিঘায় একের পর এক হোটেলে ঢুকতে থাকে সমুদ্রের জল। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, কখনও কখনও ঢেউয়ের উচ্চতা এতটাই বেশি ছিল যে একেকটি ঢেউয়ের উচ্চতা প্রায় একেকটি নারকেল গাছের উচ্চতার প্রায় সমান। একই রকমের ভয়ঙ্কর চিত্র দেখা গিয়েছে মন্দারমণিতেও। সেখানেও বিরাট বিরাট ঢেউ ভাসিয়ে দিয়েছে গোটা এলাকা। প্রত্যক্ষদর্শীরা আরও জানাচ্ছেন, তাঁরা এত বড় বড় ঢেউ এর আগে কখনও দেখেন নি। ঢেউয়ের পাশাপাশি দিঘা-মন্দারমণিতে বইছে ঝোড়ো হাওয়া। হওয়ার গতিবেগ ঘণ্টায় অন্তত ৯০ কিলোমিটার।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *