জুটিতে লুটি, তারুণ্যের তেজে ম্যাচে ফিরল ভারত

Mysepik Webdesk: তারুণ্যের প্রকৃত সংজ্ঞা বোধহয় একেই বলে। তার ভয়ডর নেই। সে দুঃসহ র্স্পধায় নেয় মাথা তোলবার ঝুঁকি। এমনটাই হল ব্রিসবেনের চতুর্থ টেস্টের তৃতীয় দিনে। ভারতের রান তখন ৬ উইকেটে ১৮৬। সকাল থেকে একে একে ফিরে গিয়েছেন চেতেশ্বর পুজারা (২৫), অজিঙ্কা রাহানে (৩৭), মায়ঙ্ক আগরওয়াল (৩৮), ঋষভ পন্থ (২৩)। অস্ট্রেলিয়া তখন ভারতের থেকে ১৮৩ রানে এগিয়ে। ‘টেল আপ’। ক্রিজে তখন অভিষেক হওয়া ভারতীয় স্পিনার ওয়াশিংটন সুন্দর এবং দু’টি মাত্র টেস্ট খেলা শার্দূল ঠাকুর। অনেকেই যখন ভাবছেন― নাহ, এই যাত্রায় বোধহয় শেষরক্ষা হল না! যখন অজি বোলাররা ‘চিন মিউজিক’ শোনাচ্ছেন, ঠিক তখনই ভয়ডরহীন ব্যাটিং শুরু করলেন এই দুই ভারতীয় তরুণ ক্রিকেটার। ব্যক্তিগত ৬৭ রানের মাথায় ঠাকুর যখন প্যাট কামিন্সের বলে বোল্ড হলেন, তখন ভারতের রান ৩০৯― অস্ট্রেলিয়ার থেকে মাত্র ৬০ রানে পিছিয়ে ভারত। স্কোরবোর্ড সচল রেখে এই দুই ব্যাটসম্যানের প্রতিকূল পরিস্থিতিতে গড়া এই দুর্দান্ত জুটি কিন্তু চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। শার্দূূূল তাঁর ইনিংসে ৯টি চার এবং ২ ছক্কা মারেন।

উভয় ব্যাটসম্যান ২১৭ বলে ১২৩ রানের পার্টনারশিপ গড়েন। যা, সপ্তম উইকেটে রেকর্ডও। এটি গত দুই বছরে সপ্তম উইকেটে সবচেয়ে বড় জুটি। এর আগে ২০১৯-এর, ঋষভ পন্থ এবং রবীন্দ্র জাদেজা সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে (এসসিজি) সপ্তম উইকেটে ২০৪ রানের পার্টনারশিপ গড়েছিলেন। ২ উইকেটে হারিয়ে ৬২ রান নিয়ে দিন শুরু করা টিম ইন্ডিয়ার ১৮৬ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল। এর পরে শার্দূল ঠাকুর এবং ওয়াশিংটন সুন্দর ভারতীয় ইনিংসের দায়িত্বভার গ্রহণ করে যে রেকর্ড অংশীদারিত্ব গড়েছেন, তা অস্ট্রেলিয়ায় সেঞ্চুরির জুটি গড়া চতুর্থ জুটি।

দলকে নিরাপদ জায়গায় নিয়ে গিয়ে ব্যক্তিগত ৬২ রানের মাথায় আউট হন ওয়াশিংটন সুন্দর। অস্ট্রেলিয়া প্রথম ইনিংসে ৩৬৯ রানের জবাবে টিম ইন্ডিয়া প্রথম ইনিংসে ৩৩৬ রান করে অলআউট হয়। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে জোস হ্যাজলউড ৫৩ রানে ৫ উইকেট নেন। মিচেল স্টার্ক এবং প্যাট কামিন্স পেয়েছেন ২টি করে উইকেট। স্পিনার নাথান লায়ন নেন একটি উইকেট। দিনের শেষে অস্ট্রেলিয়া বিনা উইকেটে ২১ রান ৫৪ রানের লিড নিয়েছে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *