উত্তাল মায়ানমারে আন্দোলনকারীদের ওপর পুলিশের গুলি, ১৮ গণতন্ত্রপন্থীর মৃত্যু

Mysepik Webdesk: মায়ানমারে সামরিক অভ্যুত্থানের পরে পরিস্থিতি এখন যুদ্ধের মতো হয়ে উঠছে। পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে ১৮ জন নিহত হওয়ার পরেও মায়ানমারের নেতা অং সান সু কি-র সমর্থকরা হাজার হাজারে রাস্তায় জড়ো হয়েছে। জয়েন্ট ইউম্যান রাইটস অফিসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অভ্যুত্থানের পর রবিবার ছিল সবচেয়ে সহিংস দিন এবং তাতে কমপক্ষে ১৮ জন নিহত হয়েছেন। নিরাপত্তা বাহিনীর গুলিবর্ষণে ইয়াঙ্গুন, দাউই ও মান্দালয় শহর থেকে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে। আমেরিকা সহ বিশ্বের অনেক দেশ এই হিংসার ঘটনায় গুরুতর উদ্বেগ প্রকাশ করেছে।

আরও পড়ুন: এখনও কাটেনি বিপদ, এবারেও এফএটিএফ-এ ধূসর তালিকাভুক্ত পাকিস্তান

ছবি: পিটিআই

মানবাধিকার অফিসের এক কর্মকর্তা বলেছেন যে, মায়ানমারে অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে বিক্ষোভকারীদের মধ্যে কমপক্ষে ১৮ জন মারা গেছে এবং ৩০ জনেরও বেশি আহত হয়েছে, এই বিষয়ে ‘দৃঢ় তথ্য’ রয়েছে। পুলিশ মায়ানমারের বৃহত্তম শহর ইয়াঙ্গুনে গুলি চালিয়েছিল এবং বিক্ষোভকারীদের রাজপথ থেকে সরিয়ে নিতে টিয়ার গ্যাসের শেল ও জলকামানও নিক্ষেপ করেছে বলে জানা গেছে।

আরও পড়ুন: আগেই মৃত্যু হওয়া মহিলা আসামিকে ঝোলানো হল ফাঁসিতে

ছবি: এপি

এদিকে, মায়ানমারে এই ঘটনায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বলেছে তারা মায়ানমারের বিরুদ্ধে ‘অতিরিক্ত ব্যবস্থা’ নেবে। এক্ষেত্রে আমেরিকা ইন্দো-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে তার মিত্রদের সঙ্গে আলোচনা করে এই হিংসার জন্য দায়ীদের ধরে নেবে। সোশ্যাল মিডিয়ায় যে ফুটেজটি শেয়ার করা হচ্ছে তাতে পুলিশকে প্রতিবাদকারীদের বিরুদ্ধে প্রচণ্ড আক্রমণাত্মক ভঙ্গিতে দেখা যায়। এই ঘটনায় রক্তপাতের ঘটনা ঘটে। শনিবার থেকে শুরু হওয়া পুলিশের এই দমন চক্র রবিবার চরমে ওঠে এবং এ-পর্যন্ত ১৮ জন নিহত হয়েছেন এই ঘটনায়।

আরও পড়ুন: ইউহানের ল্যাব থেকেই ছড়িয়েছে করোনাভাইরাস, গবেষণাপত্র প্রকাশ জার্মান বিজ্ঞানীর

এই রক্তাত্ব পরিস্থিতির পরেও সু কি-র সমর্থকদের পিছু হটতে দেখা যায়নি। আন্দোলনকারীরা দেশটির ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি নেত্রী অং সান সু কি-র নির্বাচিত সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরের দাবি জানাচ্ছেন। রাষ্ট্রসংঘের মানবাধিকার অফিস মায়ানমারের বেশ কয়েকটি শহরকে উল্লেখ করে এক বিবৃতিতে বলেছে, “ইয়াঙ্গুন, দাউই, মান্ডালে, মাইক, বাগো এবং পোকোক্কুতে জনতার উপর গুলি চালানোর কারণে অনেক লোক মারা গেছে।” বিবৃতিতে অফিসের মুখপাত্র রবীণ শামদাসনি বলেছেন, “আমরা মায়ানমারে বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে ক্রমবর্ধমান হিংসার ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই এবং সেনাবাহিনীর বিরুদ্ধে যাঁরা শান্তিপূর্ণভাবে বিক্ষোভ করছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে অবিলম্বে শক্তি প্রদর্শন বন্ধ করার আহ্বান জানাচ্ছি।”

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *