মরুদেশে ভারতীয় মরুশহরের ঝড়ে উড়ে গেল পঞ্জাব

Mysepik Webdesk: একেই বোধ হয় বলা যায় মরুদেশে ভারতীয় মরুশহরের ঝড়। এ ম্যাচে রাজস্থান রয়্যালস যে খেলাটি উপহার দিল তাকে কোনও উপমায় ব্যাখ্যা করা যায় না। বলা যায়, রাজস্থানের উপমা রাজস্থান নিজেই। শারজায় আইপিএলের নবম ম্যাচে রাজস্থান রয়্যালস ৪ উইকেটে হারিয়ে দিয়েছে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবকে। রাজস্থানের এই জয়টি বিশেষ, কারণ পঞ্জাবের দেওয়া ২২৪ রানের বিশাল লক্ষ্য তারা টপকে বিজয় ছিনিয়ে নিয়েছে তারা। রাজস্থানের হয়ে সঞ্জু স্যামসন আক্রমণাত্মক ব্যাটিং করে ৪২ বলে ৮৫ রান করে দলের পক্ষে জয়কে সহজ করে তোলে। তাঁর দুর্দান্ত ইনিংসের জন্য স্যামসনকে ‘ম্যান অফ দ্য ম্যাচ’ নির্বাচিত করা হয়েছিল। এ ছাড়া শেষের দিকে রাহুল তেওয়াতিয়াও ৩১ বলে ৫৩ রান করে ব্যাট করেছিলেন।

আরও পড়ুন: সরকারিভাবে আইএসএলে ইস্টবেঙ্গল

মায়াঙ্ক আগরওয়ালের দুর্দান্ত সেঞ্চুরি এবং অধিনায়ক লোকেশ রাহুলের অর্ধশতক ইনিংস, রবিবার কিংস ইলেভেন পঞ্জাব ২ উইকেটে ২২৩ রান তোলে। মায়াঙ্ক আগরওয়াল এবং অধিনায়ক কে এল রাহুল মিলে প্রথম উইকেটের জন্য ১৮৩ রানের বড় জুটি গড়ে। টস জিতে ফিল্ডিং নেয় রাজস্থান। তবে কিংস ইলেভেনের পক্ষে কর্নাটকের এই দুই ব্যাটসম্যানই যেন আধিপত্য বিস্তার করতে এসেছিলেন। আগরওয়াল শুরু থেকেই বড় শট খেলার মুডে ছিলেন। তিনি ৫০ বলের মধ্যে ১০৬ রান করেছিলেন। যার মধ্যে দশটি চার এবং সাতটি ছক্কা রয়েছে। শেষ ম্যাচে সেঞ্চুরি করা রাহুলের ৫৪ বলে ৬৯ রানের ইনিংসে সাতটি বাউন্ডারি এবং একটি ছক্কা দিয়ে সাজানো ছিল। শেষের দিকে নিকোলাস পুরান তাঁর দীর্ঘ শট খেলার দক্ষতার একটি ভালো উদাহরণ দিয়েছেন। ৮ বলে ২৫ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি।

রাজস্থান রয়্যালস ১৯.৩ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ২২৬ রান করে চার উইকেটে জয়লাভ করে। জোফরা আর্চার ৩ বলে ১৩ এবং টম কুরান ১ বলে ৪ রান করে অপরাজিত থাকেন। শেষ ৪.৩ ওভারে, রাজস্থান প্রায় ২০ গড়ে ৮৬ রান যোগ করে। ১৭তম ওভারের প্রথম বলে সঞ্জু স্যামসনের উইকেট হারায় রাজস্থান। মহাম্মদ শামির বলে লোকেশ রাহুলের হাতে জমা পড়েন তিনি। তৃতীয় উইকেটের জন্য তিনি রাহুল তেওয়াতিয়ার সঙ্গে স্যামসন ৪৩ রানের জুটি গড়েন। এর পরে ব্যাট করতে মাঠে আসা রবিন উথাপ্পা (৪ বলে ৯ রান) ১৯তম ওভারের প্রথম বলে মহাম্মদ শামির বলে নিকোলাস পুরানের হাতে ক্যাচ দিয়ে প্যাভিলিয়ন ফিরে যান। আউট হওয়ার আগে উথাপ্পা তেওয়াতিয়ার সঙ্গে চতুর্থ উইকেটে ১২ বলে ৪২ রান করেছিলেন। একই ওভারের শেষ বলে শামি রাহুল তেওয়াতিয়াকেও প্যাভিলিয়নের পথ দেখিয়েছিলেন। তেওয়াতিয়া ৭টি ছক্কার সাহায্যে ৩১ বলে ৫৩ রানের আক্রমণাত্মক ইনিংস খেলেন। ১৯ ওভারের দ্বিতীয় বলে মুরুগান অশ্বিন শূন্য রানে আউট করেন রায়ান পরাগকে। রাজস্থান ষষ্ঠ উইকেট হারালেও ততক্ষণে জয়ের একেবারে দোরগোড়ায় পৌঁছে গিয়েছিল পঞ্জাব। শেষমেশ তারা চার উইকেটে অবিশ্বাস্য জয় হাসিল করে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *