বাংলাদেশের সঙ্গে সীমান্ত বাণিজ্য শুরু করতে চেয়ে সরকারের কাছে আবেদন রাখাইনের স্থানীয় ব্যবসায়ীদের

Mysepik Webdesk: করোনার কারণে প্রায় আট মাস আগে মায়ানমারের রাখাইনের সঙ্গে প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশের ব্যবসা-বাণিজ্য বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। তবে মায়ানমারের সংবাদমাধ্যম ‘মায়ানমার টাইমসে’র এক রিপোর্টে উঠে এলো বার্মার পশ্চিম উপকূলে অবস্থিত রাখাইনের স্থানীয় ব্যবসায়ীরা আবার বাংলাদেশের সঙ্গে করতে চান ব্যবসা বাণিজ্য। এজন্য তাঁরা রাখাইন সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছে বলে প্রতিবেদন সূত্রে জানা গিয়েছে। মংডু বর্ডার ট্রেড চেম্বার অ্যান্ড কমার্সের চেয়ারম্যানের নাম উ অং মিয়ান্ট থেইন। তাঁর কথা অনযায়ী, ২০২০ সালের মে মাসে রাখাইন বাংলাদেশ সীমান্ত বাণিজ্য করোনাভাইরাসের কারণে বন্ধ হয়ে যায়। যদিও জুলাইতে আংশিক সময়ের জন্য শুরু হয়েছিল বাণিজ্য। আংশিক সময়, কারণ মায়ানমারে করোনার প্রাদুর্ভাব বেড়ে যাওয়ার ফলে তা আগস্ট মাসে আবার স্থগিত হয়ে যায়।

আরও পড়ুন: ক্যাপিটল হিলে হামলাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ পতন বলে মনে করছে চিন

থেইন বলেন, “স্থানীয় ব্যবসায়ীদের আর্থিক অবস্থা খুবই দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। তাঁরা সীমান্ত বাণিজ্য করতে না পারার জন্য তাঁরা আর্থিক দুর্দশার শিকার হয়েছেন। সেই কারণে এলাকার ব্যবসায়ীরা সরকারের কাছে ফের একবার সীমান্ত বাণিজ্য চালু করার ব্যাপারে আর্জি জানিয়েছে।” উল্লেখ্য যে, শুটকি মাছ, সীমান্ত বাণিজ্যের মাধ্যমে আমদানি করে মায়ানমার। তবে ঘটনাচক্রে এই মংডু বাণিজ্যকেন্দ্র শহর এলাকায় অবস্থিত। সেই কারণে করোনাকালে বাণিজ্য চালানোর মতো আদর্শ পরিবেশ এখনও নেই। মংডু থেকে দেড় মাইল দূরে অবস্থিত কানইন চং বাণিজ্য কেন্দ্র। এখান থেকেই সীমান্ত বাণিজ্য চালু করার কথা ভাবা হচ্ছে বলে খবর।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *