‘ধর্মীয় স্বাধীনতাই হল মানবাধিকার’, বাংলাদেশের ঘটনায় তীব্র প্রতিক্রিয়া আমেরিকার

Mysepik Webdesk: বাংলাদেশে দুর্গামণ্ডপ ধ্বংস ও একাধিক দুর্গামূর্তি ভাঙচুরের ঘটনার কড়া প্রতিক্রিয়া জানালো আমেরিকা। আমেরিকার বিদেশ দফতরের মুখপাত্র নেড প্রাইস এই প্রসঙ্গে বুধবার টুইট করে লেখেন, বাংলাদেশে দুর্গাপূজা উদযাপনের সময় দুর্গামণ্ডপ ও হিন্দু মন্দিরে তান্ডবের ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। আমাদের চিন্তাভাবনা হিন্দু সম্প্রদায়ের সঙ্গে রয়েছে, সেই কারণেই আমরা বাংলাদেশ সরকারকে এই ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করার আহ্বান জানাচ্ছি। ধর্ম বা বিশ্বাসের স্বাধীনতা থাকাটা মানুষের অধিকার।”

আরও পড়ুন: বাংলাদেশে দুর্গামূর্তি ভাঙচুরের ঘটনা ‘পূর্বপরিকল্পিত’, দাবি করলেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

তাঁর টুইট করার কিছুক্ষনের মধ্যেই আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা সম্পর্কিত মার্কিন দফতরের পক্ষ থেকেও একটি টুইট করা হয়। সেই টুইট লেখা হয়, “বাংলাদেশে হিন্দু সম্প্রদায়ের উপর মারাত্মক হামলার সাম্প্রতিক ঘটনায় আমরা আতঙ্কিত। সংখ্যালঘু গোষ্ঠীর সদস্য-সহ সকলেরই অবাধে ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করার অধিকার রয়েছে।”

আরও পড়ুন: চিন-ভুটানের মধ্যে স্বাক্ষরিত মউ, চিন্তায় রাখল ভারতকে!

প্রসঙ্গত, অষ্টমীর দিন কুমিল্লায় একাধিক দুর্গাপুজোর মণ্ডপে হামলা করে দুষ্কৃতীরা। পাশাপাশি হাজিগঞ্জের চাঁদপুর, চট্টোগ্রামের বাঁশখালি ও কক্সবাজারের পেকুয়াতেও পবিত্র কোরান শরীফের অপমান করা হয়েছে, এই অভিযোগে হামলা চালানো হয় বিভিন্ন পুজোমণ্ডপে। ভেঙে ফেলা হয় একাধিক দুর্গা প্রতিমা। হামলা চালানো হয় বাংলাদেশের নোয়াখালির ইসকন মন্দিরেও। মৃত্যু হয় পার্থ দাস নামে এক যুবকের। শুক্রবার জুম্মার নমাজের পর ঢাকার পল্টন, রমনা, চকবাজার এলাকায় বহু মানুষ ইসলাম ধর্মের অপমানের অভিযোগ এনে রাস্তায় নামে। পুলিশ ও বিক্ষোভকারীদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে ঢাকার কাকরাইল মোড়ে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *