বর্ণবিদ্বেষ ও লিঙ্গ বৈষম্যমূলক বিতর্কের জেরে নির্বাসিত রবিনসন নিয়ে আসরে ইংল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীও

Mysepik Webdesk: বর্ণবিদ্বেষ এবং লিঙ্গ বৈষম্যমূলক বিতর্কের জেরে ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত হয়েছেন ২৭ বছর বয়সি ব্রিটিশ ক্রিকেটার অলি রবিনসন। ৮ বছর আগে তিনি সোশ্যাল মিডিয়ায় একাধিক বিতর্কিত পোস্ট করেছিলেন। তাঁর শাস্তির মূলে রয়েছে সেই সব বিতর্কিত পোস্ট। এই ব্রিটিশ ক্রিকেটারের শাস্তির কথা জানিয়েছিলেন ইংল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী টম হ্যারিসন। তাঁদের তরফে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে যে, ‘‘সব ধরনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে ইংল্যান্ড ও সাসেক্সের বোলার অলি রবিনসনকে। সামাজিক মাধ্যমে ২০১২ এবং ২০১৩ সালে করা টু্ইটগুলোর বিষয়ে যথাযথ তদন্ত করা হবে এবং সেই রিপোর্ট অনুযায়ী পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’’

আরও পড়ুন: ফিফার নির্বাসন-কোপে ইস্টবেঙ্গলে আইএসএল ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত

রবিনসনের এই নির্বাসনের ব্যাপারে মিশ্র পতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে। কেউ ব্রিটিশ এই ক্রিকেটারটির পাশে রয়েছেন, কেউ-বা তাঁকে সমালোচনায় বিদ্ধ করেছেন। রবিনসনের এই শাস্তি নিয়ে ইঙ্গিতপূর্ণ টুইট যেমন করেছেন ভারতীয় স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিন, তেমনই ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের অধিনায়ক জো রুট কিংবা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে পাশে পেয়েছেন রবিনসন। অশ্বিন লিখেছেব, ‘‘অলি রবিনসনের মন্তব্য নিয়ে মানুষের অসন্তোষের ব্যাপারটা উপলব্ধি করতে পারছি। দুর্দান্তভাবে টেস্ট কেরিয়ারের শুরুর পর ওর নির্বাসনে একটু হলেও খারাপ লাগছে। সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে এই নির্বাসন ভবিষ্যতেরই ইঙ্গিত দিচ্ছে।’’

এই নিষেধাজ্ঞার পর রবিনসন ক্ষমা চেয়ে বলেন, ‘‘এমন মন্তব্যের জন্য খুবই লজ্জিত আমি। আমার পরিস্থিতি তখন যেমনই হোক না কেন, কোনওরকম বিচার-বিবেচনা না করে দায়িত্বজ্ঞানহীন এমন মন্তব্যের সত্যিই কোনও ব্যাখ্যা নেই। এই ভুলের জন্য লজ্জিত। যাঁরা আমার কথায় আঘাত পেয়েছেন, তাঁদের সবার কাছে ক্ষমা চাইছি আমি।’’ অন্যদিকে, ব্রিটিশ টেস্ট দলের অধিনায়ক দলনায়ক জো রুট প্রসঙ্গত বলেছেন, “মাঠের বাইরের কোনও ঘটনা আমাদের খেলায় প্রভাব ফেলবে না। আমরা জানি যে কী ঘটেছে। সেই সময়েই আমাদের সঙ্গে কথা বলেছে রবিনসন। তাছাড়াও ও সংবাদমাধ্যমের সঙ্গেও কথা। রবিনসন অনুতপ্ত। ও কীভাবে সকলের সঙ্গে মিশছে, তা আমরা দেখেছি। কীভাবে টুইটটা সামনে এসেছে জানি না।যা লেখা আছে টুইটে, তা আমরা কেউই বিশ্বাস করি না। আমাদের দলের অংশ রবিনসনের পাশে আছি।”

আরও পড়ুন: সুনীলের দাপটে পরাজিত বাংলাদেশ

রুট আরও বলেন, “এটা সকলের জন্য এটা খুব বড় শিক্ষা। নিজেদের শেখাতে হবে। একটা ভালো পরিবেশ গড়ে তুলতে হবে।” এদিকে, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর মুখপাত্র অলিভার ডাওডেন রবিনসন প্রসঙ্গে একটি টুইট করেছেন, “আপত্তিজনক ও ভুল ছিল অলি রবিনসনের টুইটগুলি। তবে এই টুইটগুলি প্রায় এক দশক পুরনো। কিশোর সেই ছেলেটি এখন বড় হয়েছে এবং ক্ষমাও চেয়েছে। ওকে শাস্তি দিয়ে একটু বেশিই বাড়াবাড়ি করে ফেলেছে ইসিবি। বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করা উচিত।’’ উল্লেখ্য যে, নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে টেস্টে দু’টি ইনিংস মিলিয়ে ৭টি উইকেট এবং ব্যাট হাতে ৪২ রান করা রবিনসনকে জাতীয় শিবির ছেড়ে সাসেক্সে ফিরতে বলেছে ইসিবি। আর সাসেক্স জানিয়েছে যে, তারা রবিনসনের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেবে না। তাই মনে করা হচ্ছে যে, আপাতত সাসেক্সের হয়ে খেলতে দেখা যাবে তাঁকে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *