গ্রামীণ পথ বেয়ে ভারতীয় হকি দলে শিবানী সাহু

Mysepik Webdesk: জীবনে যতই জটিল পরিস্থিতি আসুক না কেন, লক্ষ্য স্থির থাকলে তবে কোনও জটিলতাই সেই পথ আটকাতে পারে না। এটি প্রমাণ করেছেন রাজস্থানের দৌসা জেলার একটি ছোট্ট গ্রামে বসবাসকারী কন্যা শিবানী সাহু। ছোট থেকেই প্রবল জেদ নিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছনোর জন্য কঠোর পরিশ্রম করেছিলেন। যার ফলও পেয়েছেন হাতেনাতে। ভারতের অনূর্ধ্ব-১৬ দলের হয়ে আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন। শিবানীকে এখন ভারতের সিনিয়র মহিলা দলের শীর্ষ ২০ জনের দলে নির্বাচিত করা হয়েছে, যা তাঁর কাছে বড় সাফল্য।

আরও পড়ুন: উইম্বলডনের তৃতীয় রাউন্ডে সানিয়া-বোপান্না জুটি

শিবানী সাহু দৌসার মান্দাওয়ার গ্রামের বাসিন্দা। আর্থিক অনটন ছিল তাঁর পরিবারের নিত্য সঙ্গী। তাঁর বাবা সীতারাম সাহু গ্রামে ঠ্যালাগাড়িতে পাকোড়া বেচে দিন গুজরান করেন। তাঁরও লক্ষ্য স্থির ছিল। শত কষ্ট যেন তাঁর কন্যার জীবনে কোনও প্রভাব না ফেলে, সেই দিকে নজর রাখতেন সীতারাম। এরপর সীতারাম-কন্যার জীবনের মোড় ঘুরেছিল ২০১২ সালে। তখন মান্দাওয়ার গ্রামে জার্মানির জাতীয় খেলোয়াড় আন্দ্রেয়ার কাছে কোচিং পেয়েছিলেন শিবানী। এরপর তিনি ২০১৩ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত রাজস্থান দলের অংশ ছিলেন। এই সময় তিনি জাতীয় পর্যায়েও ম্যাচ খেলেছিলেন।

আরও পড়ুন: ইউক্রেনকে উড়িয়ে সেমিফাইনালে ইংল্যান্ড

এহেন শিবানী পড়াশোনা এবং হকি নিয়ে তাঁর কেরিয়ার গড়তে ২০১৮ সালে মুম্বই চলে আসেন। এখানে তিনি গুরু নানক খালসা ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত পড়াশোনা করেন। গ্র্যাজুয়েশন করতে এরপর তিনি পুণে যান। এর মধ্যেই হকিও চলছিল সমান তালে। ন্যাশনাল সেন্টার অফ এক্সেলেন্স স্পোর্টস অথরিটি অফ ইন্ডিয়া যখন ৬০ জন হকি খেলোয়াড়ের নাম নির্বাচিত করল, তার মধ্যে শিবানীর নামও ছিল। আর এখন তিনি ভারতীয় মহিলা হকি দলের সম্ভাব্য ২০ খেলোয়াড়ের তালিকাতেও জায়গা পেয়েছেন। যা নিঃসন্দেহে শিবানীর কাছে বড় সাফল্য। শিবানী সাহু এই সাফল্যের জন্য তাঁর পরিবার এবং কোচ আন্দ্রেয়াকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। শিবানী জানিয়েছেন, এক সাধারণ পরিবার থেকে উঠে আসা সত্ত্বেও তাঁর পরিবার তাঁকে সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়েছিল এবং তাঁকে স্বপ্ন পূরণের জন্য মুম্বই এবং পুণে পাঠিয়েছিল।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *