নন্দীগ্রামে প্রবল বিক্ষোভের মুখে শুভেন্দু অধিকারী, গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ

Suvendu Adhikari

Mysepik Webdesk: নন্দীগ্রামের সোনাচূড়া রীতিমত রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছে।গতকাল প্রবল বিক্ষোভের মুখে পড়লেন বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী। তার গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ দেখতে শুরু করেন গ্রামবাসীরা। শুভেন্দু অধিকারীর গাড়ি দেখতে পেয়েই ঝাঁটা নিয়েও তেড়ে গিয়েছিলেন গ্রামবাসীরা। সেই সঙ্গে স্লোগান তুলেছিলেন—চোর, চোর, চোরটা–শিশিরবাবুর ছেলেটা। আর আজ তার জেরেই বিজেপি তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থকদের সংঘর্ষে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল নন্দীগ্রামের সোনাচূড়া। বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন বলে খবর। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: সারদাকাণ্ডে জোড়াসাঁকোর তৃণমূল প্রার্থী বিবেক গুপ্তকে তলব ইডির

এদিন বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারীকে কালো পতাকা দেখানো হয়। তার গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ দেখানো হয়। বিক্ষোভকারীদের হঠাতে দিয়ে বচসা বাধে বিজেপি কর্মীদের। এরপরই পরিস্থিতি উত্তেজিত হয়ে ওঠে। সোনাচূড়া বাজার ছাড়াও ভুতার মোড়েও মারধর, সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। উল্লেখ্য, বুধবারও শুভেন্দু অধিকারীকে ঘিরে বিক্ষোভ স্থানীয়রা। শুভেন্দুকে বিশ্বাসঘাতক বলে স্লোগানও দেওয়া হয়। সেই সময়ে গাড়ির ভিতরে ছিলেন শুভেন্দু। নন্দীগ্রাম–২ ব্লকের ভেটুরিয়া এলাকায় শুভেন্দুর কনভয় আটকে ঝাঁটা, জুতো হাতে বিক্ষোভ দেখান স্থানীয়রা।

আরও পড়ুন: সামনেই হোলি এবং ভোট! ভেষজ আবির তৈরিতে ব্যস্ত শান্তিপুরের কৃষাণ স্বরাজ সমিতির মহিলা গোষ্ঠী

এই বিষয়ে বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ‘‌দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া উচিত। রাজ্যজুড়ে জঙ্গলরাজ চলছে। আমি সমস্ত ঘটনা পুলিশকে জানাবো। সেই সঙ্গে দিল্লিতেও জানানো হবে। সোনাচূড়া বাজারে আমাদের এক যুব নেতার মাথায় লেগেছে।’ বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেস সমর্থকরা তাদের সমর্থকদের মারধর করে।

এদিন আহতদের দেখতে হাসপাতালে যান কেন্দ্রীয় পেট্রোলিয়াম মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান। তিনি বলেন, ‘‌আমাদের যুব মোর্চার কর্মীদের মারধর করে রক্তাক্ত করা হয়েছে। পূর্ণ পাত্র নামে এক বিজেপি কর্মীকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখেছি। বুঝতে পারছি না পুলিশ কী করছে।’ অন্যদিকে তৃণমূল কংগ্রেসের দাবি, নন্দীগ্রামের মানুষ ক্ষুব্ধ শুভেন্দুর উপর।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *