মনুষ্যত্বের কঙ্কাল রূপ: কুকুরের পায়ে শব্দবাজি বেঁধে ‘নিঠুর মহোল্লাস’

Mysepik Webdesk: পুজোর মরসুমে শব্দবাজি ফাটানোর ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে মহামান্য আদালত। কিন্তু আদালতের সেই নিষেধাজ্ঞাকে উপেক্ষা করেই দেদার চলছিল বাজি ফাটানো। সেই বাজির দৌরাত্ম্যের শিকার হল এক অবলা প্রাণী। পিশাচিক উন্মাদনায় এক বা একাধিক অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি একটি অবলা কুকুরের পায়ে বাজি বেঁধে ফাটিয়ে দেওয়ায় উড়ে গেল কুকুরটির পা। পা খোয়ানো ছাড়াও কুকুরটির মুখের একাংশ ঝলসে গিয়েছে। শরীরের বিভিন্ন জায়গায় তৈরি হয়েছে ক্ষতচিহ্ন। প্রবল যন্ত্রণায় ছটফট করছে সারমেয়টি। মানুষ দেখলেই ভয়ে কুঁকড়ে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন: ভাইফোঁটার দিনে সকাল থেকে আয়োজনে ব্যস্ত বোনেরা, লম্বা লাইন মিষ্টির দোকানে

চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে খড়্গপুরের খরিদা এলাকায়। স্থানীয় বাসিন্দারা জানাচ্ছেন, ওই দিন রাতে কেউ বা কারা শব্দবাজি ফাটানোর সময় ওই নৃশংস ঘটনাটি ঘটিয়েছে। তবে কাউকেই তাঁরা সনাক্ত করতে পারেননি। জানা গিয়েছে, কুকুরটির বা দিকে পেছনের পায়ে বাজি বেঁধে ফাটিয়ে দেওয়ায় তার ওই পায়ের অর্ধেকটাই নষ্ট হয়ে গিয়েছে। পা ছাড়াও কুকুরটির মুখে ও শরীরের অন্যান্য অংশে গভীর ক্ষতের সৃষ্টি হয়েছে।

আরও পড়ুন: এয়ারপোর্ট থেকে বাড়ি ফেরার পথে দুর্ঘটনায় নিহত একই পরিবারের পাঁচজন

ইতিমধ্যেই অপরাধীদের উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে পশুপ্রেমীরা সোশ্যাল মিডিয়ায় সোচ্ছার হয়েছেনা। ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন খড়্গপুরের পুর প্রশাসক। তদন্তে নেমেছে পুলিশ। কে বা কারা এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত, তাদের খুঁজে বার করার চেষ্টা করা হচ্ছে। শেষ পাওয়া খবর অনুযায়ী, শহরের বেশ কয়েকজন পশুপ্রেমী আপাতত ওই কুকুরটির চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন। শীঘ্রই কুকুরটি সুস্থ হয়ে উঠবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তাঁরা।

Facebook Twitter Email Whatsapp

এই সংক্রান্ত আরও খবর:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *