হ্যাকারদের থাবা থেকে বাদ যাচ্ছে না স্মার্ট টিভিও, কিভাবে সুরক্ষিত রাখবেন?

Mysepik Webdesk: মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ ও অন্যান্য গেজেড তো রয়েছেই, ইদানিং হ্যাকাররা আক্রমণ করছে স্মার্ট টিভিকেও। কারণ, মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ ও অন্যান্য গেজেডের মতোই ইউটিউব থেকে শুরু করে ভিডিও কলিং, সোশ্যাল মিডিয়া সার্ফিং করা সম্ভব স্মার্ট টিভিতে। সেক্ষেত্রে, অন্যান্য গেজেডের মতোই আপনার স্মার্ট টিভিও চলে যেতে পারে হ্যাকারদের দখলে। কারণ, ম্যালওয়্যারের সাহায্যে খুব সহজেই হ্যাক করা সম্ভব অ্যান্ড্রয়েডচালিত স্মার্ট টিভি।

আরও পড়ুন: বধির দিবসে হই অঙ্গীকারবদ্ধ, শব্দদূষণকে করি জব্দ

NordNPN নামে একটি সংস্থা এই বিষয়ের ওপর একটি সমীক্ষা চালিয়ে জানিয়েছে, বর্তমানযুগে প্রায় ৬০ শতাংশ মানুষ স্মার্ট টিভি ব্যবহার করেন। কিন্তু ব্যবহারকারীরা কেউই স্মার্ট টিভিকে সুরক্ষিত করতে কোনও ব্যবস্থা গ্রহণ করেননি। ফলে, হ্যাকাররা খুব সহজেই স্মার্ট টিভিকে নিজেদের হাতিয়ার বানাচ্ছে, যার মাধ্যমে বিভিন্ন তথ্য তারা হাতিয়ে নিচ্ছে। স্মার্ট টিভির ক্যামেরা ও মাইক্রোফোনকে নিজেদের নিয়ন্ত্রণে আনা ছাড়াও বাড়ির ওয়াইফাইও নিজেদের দখলে নিয়ে আসতে পারে সাইবার অপরাধীরা। তবে এই বিপদ থেকে বাঁচতে বেশ কিছু সাবধানতা অবশ্যই আমাদের মেনে চলা উচিত। আসুন জেনে নেওয়া যাক, সেই পদ্ধতিগুলি কি কি।

আরও পড়ুন: ‘স্পেস সবার জন্য’, স্বপ্ন সফল করে চার মানুষ নিয়ে পৃথিবীতে ফিরল মহাকাশে ঘুরতে যাওয়া মহাকাশযান

১) বাড়ির স্মার্ট টিভি যদি বাড়ির ওয়াইফাই -এর সঙ্গে যুক্ত থাকে, তাহলে অবশ্যই ওয়াইফাই-এর জন্য কোনও স্ট্রং পাসওয়ার্ড ব্যবহার করতে হবে। কমপক্ষে ৮ ক্যারেকটারের পাসওয়ার্ড দেওয়া বিশেষ জরুরি।

২) স্মার্ট টিভির সফটওয়্যার সব সময় আপডেট রাখতে হবে। এর ফলে সাইবার হামলার সম্ভাবনা অনেকাংশে কমে যায়। সেক্ষেত্রে নিরাপত্তাজনিত কোনও সমস্যা থাকলে তা উপডেটের মাধ্যমে মিটে যায়।

৩) স্মার্ট টিভির জন্য অ্যাপ ডাউনলোড করার প্রয়োজন হলে অবশ্যই তা যেন গুগল প্লে স্টোর কিংবা প্রস্তুতকারী সংস্থার ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা হয়। অচেনা কোনও ওয়েবসাইট থেকে ডাউনলোড করা হলে টিভিতে ম্যালওয়্যার ঢুকে যাওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *