হরমনপ্রীতের কাছ থেকে শিরোপা ছিনিয়ে নিলেন স্মৃতি, প্রথমবার উইমেন টি-২০ চ্যালেঞ্জ জিতল ট্রেলব্ল্যাজার্স

Mysepik Webdesk: স্মৃতি মান্ধানার ট্রেলব্ল্যাজার্স প্রথমবারের মতো মহিলা আইপিএল ফাইনালে হারমনপ্রীত কৌরের সুপারনোভাসকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়নশিপ দখল করল। ফাইনাল ম্যাচে তারা ট্রেলব্ল্যাজার্স ১৬ রানে হারিয়ে দিয়েছে সুপারনোভাসকে। এই জয়ের ফলে স্মৃতি মান্ধানার দল শেষ দু’বার টুর্নামেন্টে জিতে থাকা হরমনপ্রীতের দলের থেকে শিরোপা ছিনিয়ে নিল।

আরও পড়ুন: অস্ট্রেলিয়া সফর: প্রথম টেস্টের পর পিতৃত্বকালীন ছুটিতে কোহলি, টেস্টে রোহিত ও ওয়ানডেতে এলেন স্যামসন

শারজায় টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং করে ট্রেলব্ল্যাজার্স। তারা সুপারনোভাসকে ১১৯ রানের লক্ষ্য দিয়েছিল। জবাবে সুপারনোভাস ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে মাত্র ১০২ রান তুলতেই সক্ষম হয়েছিল। অধিনায়ক হরমনপ্রীত কৌর সর্বোচ্চ ৩০ রান করেন। ট্রেলব্ল্যাজার্সের সালমান খাতুন ৩টি, দীপ্তি শর্মা ২টি এবং সোফি ইক্লেস্টোন একটি উইকেট পান।

আরও পড়ুন: ফাইনালে বেগুনি টুপি দখলে সেয়ানে সেয়ানে লড়বেন রাবাদা-বুমরাহ

এই ম্যাচে বিশেষ কিছু করতে পারেননি সুপারনোভাস ওপেনার চামারি আতাপাত্তু। ব্যক্তিগত স্কোর ৬ রানে সোফি ইক্লেস্টোনের বলে আউট হন তিনি। ট্রেলব্ল্যাজার্সের বিপক্ষে আগের ম্যাচে আতাপাত্তু ৬৭ রানের একটা দুর্দান্ত ইনিংস খেলেছিলেন। আতাপাত্তু আউট হওয়ার পরে জেমিমা রদ্রিগেস তানিয়া ভাটিয়ার সঙ্গে জুটি বেঁধে দায়িত্ব সামলানোর চেষ্টা করেছিলেন। দু’জনই দলের স্কোরকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু ট্রেলব্ল্যাজার্সের দীপ্তি শর্মা এই দুই ব্যাটসম্যানকে আউট করার পরে সুপারনোভাসকে ব্যাকফুটে ঠেলে দেয়। তানিয়া ১৪ রান এবং জেমিমা ১৩ রান করেন।

আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্ত তারকা ফুটবলার হ্যাজার্ড ও ক্যাসেমিরো

ট্রেলব্ল্যাজার্স ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১১৮ রান করে। অধিনায়ক স্মৃতি মান্ধানা দুর্দান্ত ফিফটি করেছিলেন। তিনি ৪৯ বলে ৬৮ রানের একটা ধুয়াধার ইনিংস উপহার দেন। মান্ধানা ছাড়াও কোনও খেলোয়াড় বিশেষ কিছু করতে পারেননি। সুপারনোভাসের পক্ষে রাধা যাদব ১৬ রানে ৫ উইকেট নিয়েছিলেন। তিনি টুর্নামেন্টে ৫ উইকেট শিকারকারী প্রথম খেলোয়াড়। একইসঙ্গে শশীকলা শ্রীবর্ধন এবং পুনম যাদব একটি করে উইকেট পেয়েছেন।

আরও পড়ুন: বিকল্প খেলোয়াড় হিসাবে মাঠে নেমে ২ গোল লিওলেন মেসির

ওপেনার ক্যাপ্টেন স্মৃতি মান্ধানা এবং ডিন্দ্র ডটিন ট্রেলব্ল্যাজার্সের হয়ে দুর্দান্ত শুরু করেছিলেন। মান্ধানা আক্রমণাত্মক ছিলেন এবং ডটিন উইকেটের একপ্রান্ত ধরে রেখেছিলেন। দু’জনে মিলে পাওয়ার প্লেতে স্কোর ৪৫-এ নিয়ে গিয়েছিলেন। মান্ধানা এবং ডটিন প্রথম উইকেটে প্রথম উইকেটে ৭১ রান যোগ করেছিলেন। পুনম যাদব এই জুটিটি ভাঙেন। ডটিন ব্যক্তগত ২০ রান করে প্যাভিলিয়নে ফেরেন।

ব্যাট হাতে ব্যর্থ হন পারেননি রিচা ঘোষ ও দীপ্তি শর্মা। দীপ্তি মাত্র ৯ রান করতে সক্ষম হন। তিনি রাধা যাদবের বলে চামারি আতাপাত্তুর হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন। একই ওভারে ১০ রান করে রাধার দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হন রিচা। সুপারনোভাসে একটি পরিবর্তন করা হয়েছিল। দলে জায়গা দেওয়া হয়নি প্রিয়া পুনিয়াকে। তাঁর জায়গায় পূজা বাস্তরকারা প্লেয়িং ইলেভেনে অন্তর্ভুক্ত ছিলেন। একই সময়ে, ট্রেলব্ল্যাজার্সেও একটি পরিবর্তন আনা হয়েছিল। দয়ালান হেমলতার জায়গায় দলে জায়গা পেয়েছিলেন নুজহাত পারভীন।

ছবি সৌজন্য আইপিএল

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *