রুক্ষ শীতে ত্বকের যত্নে দুধের কিছু আশ্চর্য ব্যবহার

Milk

Mysepik Webdesk: দুধ শুধু শরীর-স্বাস্থ্যের জন্যই নয়, আমাদের ত্বকের জন্যেও দুধ অত্যন্ত উপকারী। কাঁচা দুধ হোক বা নষ্ট হয়ে যাওয়া দুধ, সবই ত্বকচর্চায় ব্যবহার করতে পারেন। ত্বকের ধরণ যেমনই হোক না কেন কাঁচা দুধ ব্যবহার করলে স্কিন এর উজ্জ্বলতা ফিরে আসবেই। দুধ ত্বককে মোলায়েম করে, বলিরেখা কমাতে সাহায্য করে এবং রোদে পোড়া দাগছোপ কমায়। কারণ দুধে রয়েছে ভিটামিন এ, ভিটামিন ডি, যা ত্বকে নতুন কোষ গঠনে সহায়তার পাশাপাশি ত্বকের ইলাস্টিসিটি বাড়িয়ে ত্বককে করে দাগমুক্ত আর প্রাণবন্ত।

আরও পড়ুন: যে পদ্ধতিতে সহজেই কমবে ওজন

১. দুধ সবথেকে ভালো প্রাকৃতিক ময়শ্চারাইজার। শীতকালের রুক্ষ দিনে ত্বক নরম রাখতে ১ কাপ দুধের সঙ্গে একটা কলা চটকে মিশিয়ে একটি প্যাক তৈরি করে নিন। এ বার এই প্যাক ৩০ মিনিট মুখে লাগিয়ে রেখে জল দিয়ে ভাল করে ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের শুষ্কভাব নিমেষেই গায়েব হয়ে যাবে।

২. ত্বকে টান পড়েছে? তাহলে হাফ কাপ দুধের সঙ্গে সমপরিমাণ গ্রিন টি মিশিয়ে নিন। এ বার এই মিশ্রণ তুলোয় ভিজিয়ে গোটা মুখে হালকা করে লাগিয়ে নিন। মিনিট পনেরো রেখে জল দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। সরান করার আগে সপ্তাহে অন্তত ৩ দিন এটি করলে দ্রুত ফল পাবেন।

আরও পড়ুন: রান্নাঘরে থাকা নিত্যপ্রয়োজনীয় উপকরণ থেকে যেভাবে মুখের দাগ দূর করবেন?

৩. দুধের মধ্যে রয়েছে নানা ধরনের ভিটামিন, যা ত্বকের জন্য খুবই উওপকারী। কাঁচা দুধ ত্বকে লাগালে অ্যাকনে কমে যাবে। ত্বক পরিষ্কার রাখতে ক্লিনজার হিসেবে দারুন কাজ করে দুধ। হাফ কাপ দুধে তুলো ভিজিয়ে গোটা মুখে আলতো করে লাগিয়ে নিন। এবার আঙুলের ডগা দিয়ে হালকা করে মিনিট দশেক মালিশ করে উষ্ণ গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। এর ফলে ত্বকে জমে থাকা অতিরিক্ত তেল ও ধুলোবালি পরিষ্কার হয়ে যাবে।

৪. দুধের সঙ্গে মধু মিশিয়ে মিনিট পনেরো স্ক্রাব করুন। তার পর উষ্ণ গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। এতে আপনার ত্বকের ডেড সেল বা মরা চামড়া দূর হবে।

৫. এক কাপ কাঁচা দুধে একটু বেসন, এক চিমটে হলুদ আর এক চামচ মধু মিশিয়ে ফেসপ্যাক বানিয়ে নিন। এই প্যাক সপ্তাহে দু-দিন করে ১৫ মিনিট ধরে মুখে লাগিয়ে রাখুন। দেখবেন ত্বক আলোর মতো ঝলমল করছে।

Facebook Twitter Email Whatsapp

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *